সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০১:৪০ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
দুঃসময়েও ঊর্মিলার বাজিমাত

দুঃসময়েও ঊর্মিলার বাজিমাত

বিনোদন ডেস্কঃ  সময় এখন কারও জন্যই অনুকূল নয়, চারপাশে ভয়। আতঙ্ক জাগানিয়া করোনার ছোবল এড়াতে প্রায় দুইমাস বন্ধ ছিল সবধরনের শুটিং। অল্প কদিন হলো মিলেছে শুটিংয়ের অনুমতি, স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার নানা শর্তে। স্বাস্থ্য বিভাগের ধমকে নয়, নিজের সুরক্ষা নিশ্চিত করেই সতর্কতার সঙ্গে শুটিংয়ে অংশ নিচ্ছেন ছোটপর্দার হালের প্রিয়মুখ ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর। লাখো তরুণের হৃদয়ে টোকা দেওয়া এই অভিনেত্রী এখন ব্যস্ত ঈদুল আজহার নাটক নিয়ে।

প্রায় দুইমাস ঘরবন্দি থাকার পর টানা কাজ করে চলেছেন ঊর্মিলা। প্রতিদিনই থাকছে কোনো না কোনো নাটকের শুটিং। ঈদের একডজন নাটকে তাকে দেখা যাবে বলে জানালেন লাবণ্যময়ী এই অভিনেত্রী। চলতি দুঃসময়ে এতোগুলো নাটক কাজ করা সহজ কথা নয়, একেই বলে বাজিমাত করা।

২০০৯ সালের লাক্স-চ্যানেল আই ইভেন্ট থেকে উঠে আসা ঊমিলা শ্রাবন্তী কর এখন পর্যন্ত যতোগুলো নাটকে অভিনয় করেছেন তার সিংহভাগই রোমান্টিক গল্পের। বরাবরের মতো রোমান্টিক চরিত্রেই এবারও নির্মাতারা ঊর্মিলাকে বেছে নিচ্ছেন।

রোমান্টিক নাটকে অভিনয় করলেও রোমান্সের সুযোগ নেই, মজা করেই কথাটা বললেন ঊমিলা শ্রাবন্তী। বিষয়টা ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, প্রেমের গল্প হলেও এবারের নাটকগুলোতে রোমান্টিক সিকোয়েন্স থাকছে কমই। গল্পের প্রয়োজনে এবং একান্ত ডিমান্ড থাকলেই কেবল রোমান্টিক সিকোয়েন্স হচ্ছে। তাও সংক্ষিপ্ত, আর খুব দ্রুত।

নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করেই সব শিল্পী-কলাকুশলী কাজ করছেন উল্লেখ করে ঊমিলা বলেন, দৃশ্য শেষ করে সাথে সাথেই হাত ধুয়ে ফেলছি। স্ট্যান্ডবাই সেনিটাইজার, সাবান পাশে থাকে। এছাড়া সহশিল্পী কোথায় গেল, কার সঙ্গে মিশলো ভালোমতো খোঁজখবর নিয়ে কাজ করছি। শুটিংয়ে বাইরে মানুষ অ্যালাও করছি না। তবে আগে রেগুলার যেভাবে রোমান্টিক সিকোয়েন্স হতো সেটা এখন আর হচ্ছে না।

তিনি বলেন, করোনার আগে থেকেই আমি সচেতনভাবে চলাফেরা করি। যেমন: ক্যারিয়ার শুরু থেকেই বাসা থেকে খাবার নিয়ে যেতাম, মেকআপ নিজেরই থাকতো। খুব কম মেকআপ নিয়েছি শুটিং থেকে। আরও যেসব সুরক্ষা এখন বলা হচ্ছে এগুলো আমি আগেই থেকে করতাম। শুটিংয়ে আমার বড় একটা ব্যাগ থাকে যেখানে সবকিছু বহন করি।

ঊর্মিলা জানালেন, ঈদকে সামনে রেখে এরইমধ্যে তিনি শেষ করেছেন রিংকু রাফাতের ‘বড় লোকের বেটি, মাহমুদুল হাসান রানার ‘ব্যাচেলর বাবু’, বর্ণ নাথের ‘সুক্কুর ইজ এ গুড বয়’, আদিবাসী মিজানের ‘মেষ রাশি’, ‘চড়া তালুকদার, ‘তিন দৈত্য, ও ‘মা মরলে বাপ তালই’ নামের নাটকগুলো।

এ মুহূর্তে ঊর্মিলা রুমান রুনির পরিচালনায় একটি নাটকে শুটিংয়ে অংশ নিচ্ছেন। এছাড়াও ঈদের জন্য এস এম শাহীন, আদিবাসী মিজান ও রানার আরো কয়েকটি নাটকের শিডিউল দিয়েছেন চট্টগ্রামের এই সুন্দরী।

ঊর্মিলা বলেন, ঈদের সময় সব শিল্পীর কাজের ব্যস্ততা একটু বেশি থাকে। এছাড়া গেল ঈদের আমাদের তেমন কোনো কাজ হয়নি। করোনার এই পরিস্থিতির মধ্যেও তাই দর্শকের কথা ভেবেই ভালো কিছু কাজ করার চেষ্টা করছি।

নাটকের বাইরে সম্প্রতি অমিতাভ রেজার নির্দেশনায় সম্প্রতি একটি বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন বলে জানালেন তিনি।

এজেড এন বিডি ২৪/ রাকিব 

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24