সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ১২:২৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
পর্যটক শূন্য কক্সবাজার, হোটেলে নিষিদ্ধ সভা-সমাবেশ

পর্যটক শূন্য কক্সবাজার, হোটেলে নিষিদ্ধ সভা-সমাবেশ

নিউজ ডেস্কঃ বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে করোনা ভাইরাসের প্রভাবে পর্যটক শূন্য। করোনা প্রতিরোধে পর্যটন এলাকার কয়েকশ’ হোটেল, মোটেল ও রিসোর্টে সব ধরনের সভা-সমাবেশ কিংবা অনুষ্ঠান আয়োজন নিষিদ্ধ করেছে প্রশাসন।

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের সী-গাল পয়েন্ট। বছরের এই সময় পয়েন্টটি পর্যটকে ভরা থাকলেও এখন পর্যটক শূন্য। খালি পড়ে রয়েছে সৈকতের কিটকটগুলো। বেকার সময় পার করছেন সৈকতের ফটোগ্রাফার, হকার ও বিচ বাইক চালকরা। একই অবস্থা সৈকতের বাকি পয়েন্টগুলোতেও। সৈকত পাড়ে রয়েছে এক হাজারের বেশি বার্মিজ দোকান। সৈকত পর্যটক শূন্য হয়ে পড়ায় দুঃশ্চিন্তা ভর করেছে দোকানিদের ওপর।

সৈকত তটে চেয়ার ভাড়া দেন এমন একজন বলেন, আমাদের সব চেয়ার খালি। পর্যটক তেমন আসেন না। এক ফটোগ্রাফার বলেন, আগে আমরা ৭০০ থেকে ১ হাজার টাকার কাজ করতাম কিন্তু এখন তা হচ্ছে না। এখন ২০০ থেকে ৩০০ টাকা ম্যানেজ করাই আমাদের খুব কষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

কক্সবাজারের সুগন্ধা পয়েন্টের তারকা মানের একটি হোটেলে করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষায় সেখানে প্রবেশের সময় প্রত্যেক পর্যটককে হাত পরিষ্কারসহ নেয়া হয়েছে নানা সতর্কতা। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে অনেকেই বাতিল করেছেন হোটেলের অগ্রিম বুকিং।

জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন, করোনার কারণে পর্যটন এলাকার হোটেল, মোটেল ও রিসোর্টে সভা-সমাবেশ কিংবা অনুষ্ঠান আয়োজন নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা বলেন, সভা-সমাবেশ জাতীয় অনুষ্ঠানগুলো আমাদের এখান থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

কক্সবাজারে ছোট-বড় আবাসিক হোটেলের সংখ্যা সাড়ে ৪ শতাধিক। যেখানে প্রতিদিন গড়ে অবস্থান করতে পারেন এক লাখের বেশি পর্যটক।

এজেড এন বিডি ২৪/ রেজা

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24