বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:০৫ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ :
সাড়ে ৪ ঘণ্টা আগে বিএনপির গণসমাবেশ শুরু ২৪ বছর পর থামলো ব্রাজিলের রেকর্ডযাত্রা ইতিহাস গড়া গোল করে কেন লাল কার্ড দেখলেন আবুবাকার? ‘দ্বিতীয়’ ব্রাজিল জিততে পারল না ব্রাজিলকে হারিয়েও হতাশায় পুড়ল ক্যামেরুন ‘ইপাসি’ দেওয়ালে প্রথমার্ধে দুঃস্বপ্ন ব্রাজিলের ঢাবিতে গাড়ির ধাক্কায় নারীর মৃত্যু নিরাপদ ক্যাম্পাস দাবিতে বিক্ষোভ রোনালদোদের হারিয়ে কোরিয়ার উৎসব চোখের জলে সুয়ারেজ-কাভানিদের বিদায় আইপিএলের নিলামে সাকিব-মোস্তাফিজসহ ৬ বাংলাদেশি রাজশাহীতে পৌঁছালেন মির্জা ফখরুল মিসেস এশিয়া বাংলাদেশের আয়োজকদের বিরুদ্ধে অর্থ নেওয়ার অভিযোগ প্রতিযোগী রাহা’র সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজকদের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আমাকে শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক-সব দিকেই টর্চার করেছে: সারিকা প্রবাসীর স্ত্রীর কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ
অসুস্থ মাকে হাসপাতাল চত্বরে ফেলে পালালেন সন্তানরা

অসুস্থ মাকে হাসপাতাল চত্বরে ফেলে পালালেন সন্তানরা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃঅসুস্থ বৃদ্ধা মাকে পরিবারের বোঝা মনে করে হাসপাতাল চত্বরে ফেলে রেখে গেছেন সন্তানরা। রোববার (১৬ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে এমন এক হৃদয়বিদারক দৃশ্য চোখে পড়ে বগুড়ার ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স (হাসপাতাল) চত্বরে। অসুস্থ ওই বৃদ্ধার নাম জরিনা বেগম। তিনি বগুড়ার শেরপুর উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামের মৃত বছির উদ্দিনের স্ত্রী।

সরেজমিনে দেখা যায়, বয়সের ভারে ন্যুব্জ হয়ে পড়েছেন জরিনা বেগম। তার শরীরে বাসা বেঁধেছে নানা রোগ। এর মধ্যে প্রকট হয়ে দেখা দিয়েছে শ্বাসকষ্টজনিত রোগ। হাসপাতাল চত্বরে নির্বাক হয়ে শুয়ে আছেন তিনি। পাশে পড়ে আছে ইনহেলার। তার দুই চোখ আকাশের দিকে। চোখে-মুখে তার কষ্টের ছাপ। কিছু জানতে চাইলে শুধু ইশারা করেন। মুখ ফুটে কিছু বলতে পারছেন না তিনি।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে গিয়ে জরিনা বেগমের বিষয়ে কিছু তথ্য পাওয়া যায়। জরুরি বিভাগের চিকিৎসকের সহকারী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গত রোববার সকালে জরিনা বেগমকে জরুরি বিভাগে নিয়ে আসেন অজ্ঞাত এক নারী। তিনি শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে আক্রান্ত। অজ্ঞাত নারীর কথায় জরিনা বেগমকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইনচার্জ মুক্তি পারভীন বলেন, ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে জরিনা বেগমকে ভর্তি রেখে চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় একদিনও তার স্বজনরা খোঁজ-খবর নিতে আসেননি। ওষুধ সেবনের সময় তিনি পারিবারিক নানা কষ্টের কথা বলেছেন।

জরিনা সেবিকাকে জানান, তার স্বামী অনেক দিন আগে মারা গেছেন। তার দুই ছেলে ও পুত্রবধূ রয়েছে। তারা কেউ তার খোঁজ-খবর নেয় না। দীর্ঘদিন ধরে নানা রোগে ভুগছেন তিনি। ছেলেরা তাকে চিকিৎসা করাতে চায় না। তাকে পরিবারের বোঝা মনে করে হাসপাতালে রেখে গেছেন। তবে ভর্তির সময় তার সঙ্গে এক ছেলের স্ত্রী এসেছিলেন। মুক্তি পারভীন জানান, আজ রোববার সকালে হাসপাতাল ছেড়ে চলে যেতে ব্যাকুল হয়ে পড়েন জরিনা। তাই তাকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

এজেড এন বিডি ২৪/ তন্নি

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *