শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:০২ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ :
সাড়ে ৪ ঘণ্টা আগে বিএনপির গণসমাবেশ শুরু ২৪ বছর পর থামলো ব্রাজিলের রেকর্ডযাত্রা ইতিহাস গড়া গোল করে কেন লাল কার্ড দেখলেন আবুবাকার? ‘দ্বিতীয়’ ব্রাজিল জিততে পারল না ব্রাজিলকে হারিয়েও হতাশায় পুড়ল ক্যামেরুন ‘ইপাসি’ দেওয়ালে প্রথমার্ধে দুঃস্বপ্ন ব্রাজিলের ঢাবিতে গাড়ির ধাক্কায় নারীর মৃত্যু নিরাপদ ক্যাম্পাস দাবিতে বিক্ষোভ রোনালদোদের হারিয়ে কোরিয়ার উৎসব চোখের জলে সুয়ারেজ-কাভানিদের বিদায় আইপিএলের নিলামে সাকিব-মোস্তাফিজসহ ৬ বাংলাদেশি রাজশাহীতে পৌঁছালেন মির্জা ফখরুল মিসেস এশিয়া বাংলাদেশের আয়োজকদের বিরুদ্ধে অর্থ নেওয়ার অভিযোগ প্রতিযোগী রাহা’র সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজকদের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আমাকে শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক-সব দিকেই টর্চার করেছে: সারিকা প্রবাসীর স্ত্রীর কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ
যমুনার পানি কমায় বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছে বানভাসিরা

যমুনার পানি কমায় বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছে বানভাসিরা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ বগুড়ায় যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় সারিয়াকন্দির উপজেলার পূর্বাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হতে শুরু করেছে। এদিকে সারিয়াকান্দি ও সোনাতলা উপজেলা সংলগ্ন বাঙালী নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

যমুনা পূর্বাঞ্চলের নিম্নাঞ্চল থেকে পানি কমে মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় বিপদসীমার ১৯ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে বাঁধে আশ্রয় নেওয়া মানুষ বাড়ি-ঘরে যাবার প্রস্তুতি নিচ্ছে।
কিন্তু বাঙালী নদীর পানি বিপদসীমার ৭৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে বাঙালী সংলগ্ন ৪ টি উপজেলা শেরপুর, শাজাহানপুর, গাবতলী ও বগুড়া সদরের কিছু অংশ এখনও পানির নিচে রয়েছে।

সর্বশেষ মঙ্গলবার শেরপুর উপজেলার কয়েকটি গ্রামে পানি প্রবেশ করেছে। এই উপজেলার নদী এলাকার নিচু এলাকাতেই বেশি পানি দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে জেলার ৬ টি উপজেলা এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

৬ টি উপজেলা সারিয়াকান্দি, সোনাতলা, ধুনট, গাবতলী, শাজাহানপুর ও শেরপুর উপজেলায় ৭৫ হাজার পরিবারের প্রায় ৩ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যমুনা নদীর পানি হ্রাস পাওয়ায় সারিয়াকান্দিতে বন্যা পরিস্থিতর উন্নতি হতে শুরু করেছে।

বগুড়ার শেরপুর উপজেলার বাঙালী ও করতোয়া নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বগুড়া পৌর এলাকাসহ উপজেলার চারটি ইউনিয়নে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। উপজেলার নতুন নতুন ফসলি জমি তলিয়ে গেছে।

জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলায় যমুনা নদীর পানি কমতে শুরু করলেও পানি বাড়ি-ঘর থেকে পুরোপুরি নেমে যায়নি। ফলে মানুষ এখনও বন্যা কবলিত বাড়ি-ঘরে ফিরে যেতে পারেনি। বাঙালী নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় অন্য ৪ টি উপজেলায় বন্যার পানির সাথে যুদ্ধ করে চলছে।

এজেড এন বিডি ২৪/ রামিম

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *