রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:০৫ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ :
সাড়ে ৪ ঘণ্টা আগে বিএনপির গণসমাবেশ শুরু ২৪ বছর পর থামলো ব্রাজিলের রেকর্ডযাত্রা ইতিহাস গড়া গোল করে কেন লাল কার্ড দেখলেন আবুবাকার? ‘দ্বিতীয়’ ব্রাজিল জিততে পারল না ব্রাজিলকে হারিয়েও হতাশায় পুড়ল ক্যামেরুন ‘ইপাসি’ দেওয়ালে প্রথমার্ধে দুঃস্বপ্ন ব্রাজিলের ঢাবিতে গাড়ির ধাক্কায় নারীর মৃত্যু নিরাপদ ক্যাম্পাস দাবিতে বিক্ষোভ রোনালদোদের হারিয়ে কোরিয়ার উৎসব চোখের জলে সুয়ারেজ-কাভানিদের বিদায় আইপিএলের নিলামে সাকিব-মোস্তাফিজসহ ৬ বাংলাদেশি রাজশাহীতে পৌঁছালেন মির্জা ফখরুল মিসেস এশিয়া বাংলাদেশের আয়োজকদের বিরুদ্ধে অর্থ নেওয়ার অভিযোগ প্রতিযোগী রাহা’র সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজকদের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আমাকে শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক-সব দিকেই টর্চার করেছে: সারিকা প্রবাসীর স্ত্রীর কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ
চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধের ৩ উপায়

চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধের ৩ উপায়

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ শীত পড়তে না পড়তেই চুলেও তার প্রভাব পড়তে শুরু করে। খুশকির সমস্যা তো থাকেই, সেইসঙ্গে চুল হয়ে যায় রুক্ষ ও প্রাণহীন। এসময় বাতাসে আর্দ্রতা কমতে শুরু করে। যে কারণে তার প্রভাব পড়ে আমাদের ত্বক ও চুলে। এক সময় শুরু হয় চুলের আগা ফেটে যাওয়ার সমস্যা। এতে চুল হয়ে পড়ে ভঙ্গুর। শীতের সময়ে চুলের আগা ফাটা প্রতিরোধে বেছে নিতে পারেন ঘরোয়া উপায়। চলুন জেনে নেওয়া যাক ৩টি সমাধান-

নারিকেল তেল ব্যবহার
নারিকেল তেলকে বলা হয় প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার। এটি চুলের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে। এই তেলে থাকে মিডিয়াম চেন ফ্যাটি অ্যাসিড। এই উপাদান কাজ করে চুল ভালো রাখতে। চুলকে ময়েশ্চারাইজও করে নারিকেল তেল। সেইসঙ্গে জোগায় প্রয়োজনীয় পুষ্টিও। যে কারণে চুলের আগা ফাটা সমস্যা সারিয়ে তোলা সহজ হয়। নারিকেল তেল ব্যবহারের আগে অল্প গরম করে নিন। এরপর তা মাথার ত্বক ও চুলে ভালো করে লাগিয়ে নিন। এভাবে অপেক্ষা করুন ঘণ্টা দুয়েক। এরপর শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে ২-৩ দিন চুলে এভাবে নারিকেল তেল ব্যবহার করলেই উপকার পাবেন।

আমন্ড অয়েল ব্যবহার
চুলের জন্য নারিকেল তেলের মতো আরেকটি উপকারী তেল হলো আমন্ড অয়েল। এটিও চুলকে ময়েশ্চারাইজ করতে কাজ করে। ‘বিএমসি কমপ্লিমেন্টারি মেডিসিন অ্যান্ড থেরাপিস’ জার্নালের এক গবেষণায় এমনটাই বলা হয়েছিল। চুলে পর্যাপ্ত আর্দ্রতা বজায় থাকলে আগা ফাটার সমস্যা থাকে না। পরিমাণমতো আমন্ড তেল নিয়ে মাথার তালু ও চুলে ভালো করে মেখে নিতে হবে। এভাবে দুই ঘণ্টার মতো রেখে দিন। এরপর শ্যাম্পু করে নেবেন। সপ্তাহে ৩ দিন এটি ব্যবহার করতে পারবেন।

টক দইয়ের ব্যবহার
চুলের যত্নে অন্যতম উপকারী উপাদান হলো টক দই। এটি ব্যবহারে চুলের আর্দ্রতা ধরে রাখা সহজ হয়। যে কারণে চুলে পুষ্টি পৌঁছায় সহজেই। একটি পাত্রে ৪ চামচ টক দই, ১ চামচ অলিভ অয়েল ও ১ চামচ মধু মিশিয়ে নিন। ঘন একটি মিশ্রণ তৈরি হবে। এবার সেই মিশ্রণ মাথার ত্বক ও চুলে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। এভাবে রেখে দিন ১ ঘণ্টার মতো। এরপর শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে ১ বার এভাবে ব্যবহার করলেই উপকার পাবেন।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *