মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:২০ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ :
সাড়ে ৪ ঘণ্টা আগে বিএনপির গণসমাবেশ শুরু ২৪ বছর পর থামলো ব্রাজিলের রেকর্ডযাত্রা ইতিহাস গড়া গোল করে কেন লাল কার্ড দেখলেন আবুবাকার? ‘দ্বিতীয়’ ব্রাজিল জিততে পারল না ব্রাজিলকে হারিয়েও হতাশায় পুড়ল ক্যামেরুন ‘ইপাসি’ দেওয়ালে প্রথমার্ধে দুঃস্বপ্ন ব্রাজিলের ঢাবিতে গাড়ির ধাক্কায় নারীর মৃত্যু নিরাপদ ক্যাম্পাস দাবিতে বিক্ষোভ রোনালদোদের হারিয়ে কোরিয়ার উৎসব চোখের জলে সুয়ারেজ-কাভানিদের বিদায় আইপিএলের নিলামে সাকিব-মোস্তাফিজসহ ৬ বাংলাদেশি রাজশাহীতে পৌঁছালেন মির্জা ফখরুল মিসেস এশিয়া বাংলাদেশের আয়োজকদের বিরুদ্ধে অর্থ নেওয়ার অভিযোগ প্রতিযোগী রাহা’র সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজকদের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আমাকে শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক-সব দিকেই টর্চার করেছে: সারিকা প্রবাসীর স্ত্রীর কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ
জান্নাতুল নাঈমের তিনটি কবিতা

জান্নাতুল নাঈমের তিনটি কবিতা

মুগ্ধতা

      -জান্নাতুল নাঈম

একদিন আমাদের দেখা হবে
প্রকৃতি হাসুক কিংবা কাঁদুক
আমাদের দুজনের জীবনে সুখের কান্না নামবে
এক নির্ভরতায় দুজন দুজনার মুঠো চেপে রবো
দুজনার বিমুগ্ধতায় চোখে চেয়ে রবো
সারা দিনমান যাবে
তবু মুগ্ধতা থামবে না।

একদিন আমাদের দেখা হবে
প্রকৃতি সাজুক কিংবা না সাজুক
তোমার জন্য আমি খুব করে সাজবো
খোঁপাজুড়ে কয়েক জোড়া গোলাপ ফুল দেবো
হরেক রঙের চুড়িতে হাত দুটি সাজাবো
সারাবেলা কেটে যাবে
তবু স্বিগ্ধতা থামবে না।

সুহৃদ, সেই দিনটি কবে?
দেখো অপেক্ষার তীর ঘেঁষে বৃক্ষ হয়ে দাঁড়িয়ে আছি।

****

ভালোবাসার দাবিদার

                  -জান্নাতুল নাঈম

আমি মুগ্ধ হয়ে তোমার মুখপানেই তাকিয়ে থাকি
তোমার মুখপানে তাকিয়ে আমি সব দুঃখ ভুলে যাই
তুমি প্রতিনিয়ত কথার মুগ্ধতায় আমার মন কেড়েছো
আমি চেয়ে দেখি আমার হৃদয়খানা তোমার হয়ে গেছে
এই হৃদয় পটে তুমি ছাড়া কোনো কিছুই নেই।

আমি মুগ্ধ তোমার কথামালা পড়ে নিই
তোমার কথারা আমার সমস্ত নিঃসঙ্গতা কেড়ে নিয়েছে
তুমি প্রতিনিয়ত কথার ঝুড়ি দিয়ে আমায় হৃদয় কেড়ে নিচ্ছো
আমি চেয়ে দেখি মনটা ভালোবাসার শ্রোতা হয়ে গেছে
এখন কেবলই মনে হয় তুমি আমার উপসংহারের ভালোবাসা।

আমি মুগ্ধ হয়ে তোমার প্রবল ভালোবাসা দেখি
এতটা আকাশ সমান মন দেখে আনন্দে অশ্রু বেয়ে পড়ে
তুমি প্রতিনিয়ত আমায় উড়তে শেখাও
আমি চেয়ে দেখি আমার সব ভালোবাসা তুমি নিয়ে গেছো
তোমার চোখে চেয়ে বুঝি তুমিই আমার সব ভালোবাসার দাবিদার।

****

এক দুষ্টু মেয়ের চিঠি

              -জান্নাতুল নাঈম

বাবা, কেমন আছেন?
আমাদের বাড়ির দক্ষিণের পুকুরে
এখনো কি মাছ নাচানাচি করে
নাকি পুকুরটাকে মাটি ভরিয়ে বসতবাড়ি করে
যাচ্ছেন আমাদের মধ্যদুপুরের স্মৃতি ক্ষয়ে?

আচ্ছা বাবা,
আমার লাগানো পেয়ারা, বাতাবি গাছে
এখনো কি ফল ধরে,
নাকি কোনো ঝড়ে গাছপালা ভেঙে গেছে?
আমার লাগানো জবা, বেলি, গোলাপ গাছে ফুল কি ধরে?
জানি খুব ভোরে উঠে কেউ আর
থাকে না গাছের ধার ধার।
আর কিছুদিন তারপর আসবো
দেখবে ঘরধোর আবার করবো অগোছালো,
জিনিসপত্র ফেলে সব করবো এলোমেলো
মাকে বড্ড জ্বালাতন করবো
তোমায় আবার লাল চা বানিয়ে দেবো।

আবার বাড়ি এসে ভোরসকালে ঘুম থেকে উঠবো
খুব ভোরে উঠে ফুল কুড়াবো,
ফুল বেণীতে গেঁথে তোমার কথামালা হবো
এখন আমি সবই পারি,
কিন্তু আমার সন্ন্যাসী গিরিপথ পাই না
সময় পেলেই আসবো,
খিলখিলিয়ে হাসবো।

কবি: স্নাতকোত্তর (শেষ পর্ব), সমাজকর্ম বিভাগ, চাঁদপুর সরকারি কলেজ, চাঁদপুর।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *