বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
নদীতে পড়ে যাওয়া আইফোন ১০ মাস পরও সচল!

নদীতে পড়ে যাওয়া আইফোন ১০ মাস পরও সচল!

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক ১০ মাস আগে নদীর পানিতে হারিয়ে যাওয়া আপনার ফোনটা যদি আবার ফেরত পান। তাহলে কেমন হয় বলুন তো? অবিশ্বাস্য হলেও ব্রিটেনের এক ব্যক্তির সঙ্গে ঘটেছে এমন এক ঘটনা। দশ মাস আগে একটি নদীতে তার সাধের আইফোনটা পড়ে যায়। ফিরে পাওয়ার আশা ছেড়ে দিয়ে একদিন জানতে পারেন, তার সেই ফোনটি উদ্ধার করা গিয়েছে এবং সেটি সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় আছে।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, ব্রিটেনের ওয়েইন ডেভিস নামের এক ব্যক্তির ব্যবহৃত আইফোনটি ২০২১ সালের আগস্ট মাসে সিন্ডারফোর্ডের গ্লুসেস্টারশ্যায়ারে ওয়াই নদীতে পড়ে যায়। জীবনে কখনও ফোনটা আর ফিরে পাবেন না, এ হতাশা নিয়ে বাড়ি ফেরেন ওয়েইন। ১০ মাস পরে ওই নদীর তীরেই বেড়াতে যান মিগুয়েল প্যাশিও নামের আরেক ব্যক্তি। ওয়েইনের ফোনটি নজরে আসে মিগুয়েলের। পরে ফোনের মালিক কে, তা জানার জন্য সেটিকে ভাল করে শুকিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন।

দেশটির গণমাধ্যমে তিনি বলেন, জলে ভর্তি ছিল ফোনটি। ভেবেছিলাম, এর অবস্থা শোচনীয়।

শুকিয়ে যাওয়ার পর ফোনটা যে আবার চালু হবে না, সেটা ধরে নিয়েই রিস্টার্ট করেন মিগুয়েল। কিন্তু ব্যাটারি লো থাকার কারণে ফোনটা অন হচ্ছিল না।

পরে মিগুয়েল ফোনটিকে চার্জে বসান। তারপর যে কাণ্ডটি ঘটে তা তিনি নিজেও বিশ্বাস করতে পারেননি। চার্জ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি ফোনটির সুইচ অন করেন এবং অবিশ্বাস্যজনক ভাবে সেটি চালু হয়ে যায়। ফোনটা খোলার সঙ্গে সঙ্গে মিগুয়েল একটি স্ক্রিনসেভার দেখেন। ১৩ আগস্ট এক ব্যক্তি এবং এক মহিলার ছবি ছিল সেখানে। ঠিক সেই দিনই ফোনটা পড়ে গিয়েছিল পানিতে।

পরে খুঁজে পাওয়া সেই আইফোনের মালিকের সন্ধানে ফেসবুকে পোস্ট করেন মিগুয়েল। ৪ হাজারের বেশি শেয়ার হয় তার ফেসবুক পোস্টটি। অন্যদিকে ফোনের আসল মালিক ওয়েইন ডেভিস প্রায় ফেসবুক খোলেনই না। তবে তার বন্ধুরা ফেসবুকে পোস্টটির সংস্পর্শে আসেন এবং মিগুয়েলের সঙ্গে যোগাযোগ করার ব্যবস্থা করে দেন।

হারিয়ে যাওয়া ফোন ফেরাতে মিগুয়েলের প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানিয়ে ওয়েইন বলেন, আমি আর আমার স্ত্রী দুজনে একটি ক্যানোতে (নৌকা বিশেষ) চড়ে ঘুরছিলাম। আমার স্ত্রী উঠে দাঁড়াতেই আমরা পানিতে পড়ে যাই। আমার পিছনের পকেটে ফোনটা ছিল। সেটাও যথারীতি পড়ে যায়। আমি ধরেই নিয়েছিলাম ফোনটা আর ফিরে পাব না।

এই ঘটনায় সবথেকে নজরকাড়া বিষয়টি হল, ১০ মাস নদীতে থাকার পরেও সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় ছিল ফোনটি। আর তার কারণ হল, বর্তমান সময়ের প্রায় সব আইফোনই IP68 রেটেড। এর অর্থ হল, একটা ফোন পানির ১.৫ মিটার পর্যন্ত গভীরতায় প্রায় ৩০ মিনিট সচল থাকে। কিন্তু ওয়েইনের এ ঘটনা যেন মিরাকলের থেকেও কয়েক ধাপ এগিয়ে ছিল।

এজেড এন বিডি ২৪/ রেজা

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24