সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০১:১৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
প্রথম দিন চট্টগ্রাম স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশীদের চাপ কম

প্রথম দিন চট্টগ্রাম স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশীদের চাপ কম

অনলাইন ডেস্কঃ  সারা দেশের মতো চট্টগ্রামেও আজ থেকে শুরু হয়েছে ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি। শুক্রবার (১ জুলাই) দেওয়া হচ্ছে ৫ জুলাইয়ের টিকিট। অগ্রিম টিকিট বিক্রির প্রথম দিনে চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে ঈদ যাত্রার টিকেট প্রত্যাশীদের তেমন চাপ ছিল না।

শুক্রবার (১ জুলাই) চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার রতন কুমার চৌধুরী  বলেন, আজ চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ৫ জুলাইয়ের ঈদ যাত্রার টিকিট দেওয়া হচ্ছে। আজ টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় কম ছিল।

তিনি বলেন, চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় ছিল বেশি। এ ট্রেনের টিকিট শেষ হয়ে গেছে। তবে অন্যান্য আন্তঃনগর সব ট্রেনের টিকিট এখনও বাকি আছে। কেউ স্টেশনে আসলে বিড়ম্বনা ছাড়াই টিকিট কাটতে পাড়ছেন।

চট্টগ্রাম থেকে প্রতিদিন ১০টি আন্তঃনগর ট্রেন ছেড়ে যায় জানিয়ে স্টেশন ম্যানেজার বলেন, এসব ট্রেনে মোট ৭ হাজার সিট রয়েছে। এগুলোর মধ্যে কাউন্টার থেকে বিক্রি করা হচ্ছে ৩ হাজার ৫০০ টিকিট। বাকি টিকিট অনলাইনে বিক্রি করা হচ্ছে। যাত্রার দিন ঢাকামুখী ট্রেনগুলোতে অতিরিক্ত বগি যোগ করার চেষ্টা করা হবে।

তিনি বলেন, টিকিটের কার্যক্রম সিসিটিভির মাধ্যমে মনিটরিং করা হচ্ছে। এছাড়া স্টেশনে পুলিশ, আরএনবিসহ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা কাজ করছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার টিকিট কিনতে আসা আনোয়ারুল ইসলাম  বলেন, সকাল ৮টায় লাইনে দাঁড়িয়ে অল্প সময়ের মধ্যে টিকিট পেয়েছি। খুবই ভালো লাগছে। আজকে তেমন যাত্রীর চাপ ছিল না।

আরেক যাত্রী মাইনুল ইসলাম বলেন, সকাল ৯টায় এসে ঢাকাগামী মহানগর এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই কিনতে পেরেছি। তবে চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেসের টিকিট কাটতে আসা লিপি আক্তার বলেন, সকালে এসেছিলাম টিকিটের জন্য, এসে শুনি টিকিট শেষ হয়ে গেছে। কী আর করার আগামীকাল সকালে আবার আসতে হবে।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, স্টেশনের ১ নম্বর কাউন্টারে নারী, ওয়ারেন্ট ও রেলওয়ের পাস টিকিটের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। ২ নম্বর কাউন্টারে সুবর্ণ ও সোনার বাংলা এক্সপ্রেস (স্নিগ্ধা ও শোভন চেয়ার), ৩ নম্বর কাউন্টারে পাহাড়িকা ও উদয়ন, ৪ নম্বর কাউন্টারে মহানগর গোধূলি ও মহানগর এক্সপ্রেস, ৫ নম্বর কাউন্টারে তূর্ণা এক্সপ্রেস, ৬ নম্বর কাউন্টারে চট্টলা ও বিজয় এক্সপ্রেস (স্নিগ্ধা, শোভন চেয়ার ও শোভন), ৭ নম্বর কাউন্টারে মেঘনা এক্সপ্রেস, চাঁদপুর স্পেশাল ট্রেনের টিকিট বিক্রি হচ্ছে। বাকি কাউন্টারে অন্যান্য ট্রেনের টিকিট দেওয়া হচ্ছে।

এজেড এন বিডি ২৪/ রেজা 

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24