রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৩:০৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
লালমনিহাটে ভাগিনার হাত ধরে ঘর ছাড়লেন মামী

লালমনিহাটে ভাগিনার হাত ধরে ঘর ছাড়লেন মামী

লালমনিরহাটঃ ছয় বছরের সন্তান রেখে ভাগিনার হাত ধরে উধাও হয়েছে মামী। হাতীবান্ধা উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) দুপুরে মেয়ের স্কুল ড্রেস কেনার কথা বলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান তারা। এরপর আত্মীয়-স্বজন ও বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করে না পেয়ে  থানায় লিখিত অভিযোগ করেন স্বামী আবদুল্লাহ।

মামী সেলিনা আকতার (২৫) ওই উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের একাব্বর আলীর মেয়ে। ভাগিনা আসন্ন এস এস সি পরীক্ষার্থী সফিউল ইসলাম সফি (১৬) একই ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের দুলাল হোসেনের ছেলে।

আবদুল্লাহর দুলাভাই আনছার আলী বলেন, “গত দুই বছর ধরে সেলিনা ও ভাগিনা শফির মন দেওয়া নেওয়ার সম্পর্ক। এ নিয়ে অনেকবার স্থানীয়ভাবে শালিস হয়েছে। গত এক মাস আগেও এ নিয়ে এলাকায় শালিস হয়েছে। কিন্তু কোনোভাবেই তাদের ভালবাসার সম্পর্ক ছিন্ন করা গেল না।”

সেলিনার স্বামী আবদুল্লাহ বলেন, “৬ বছরের একটি মেয়েকে রেখে কীভাবে ভাগিনার হাত ধরে পালালো সেলিনা। যাওয়ার সময় সে আমার টাকা-পয়সা সব নিয়ে গেছে। এখন আমি অসহায়।”

জানা যায়, একই ইউনিয়নের ২০১৫ সালে সেলিনা আকতারের সঙ্গে বিয়ে হয় আবদুল্লাহর। গত দুই বছর ধরে আবদুল্লার চাচাতো বোন বুলবুলি বেগমের ছেলে শফিউল ইসলাম সফির সঙ্গে সেলিনা আকতারের পরকিয়া চলছিল। সেই প্রেমের টানে বৃহস্পতিবার সুযোগ বুঝে তারা বাড়িতে রাখা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে পালিয়ে যায়। মামী-ভাগিনার এখন পর্যন্ত কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

হাতীবান্ধা থানার ওসি এরশাদুল আলম সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “এ বিষয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন সেলিনার স্বামী আবদুল্লাহ। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এজেড এন বিডি ২৪/ রেজা

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24