রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৩:০৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণে কানের পর্দা ফেটেছে নুরুলের

সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণে কানের পর্দা ফেটেছে নুরুলের

অনলাইন ডেস্কঃ কাভার্ডভ্যানের চালক নুরুল আবসারের বাড়ি সীতাকুণ্ড। ঢাকা থেকে তৈরিপোষাক নিয়ে বিএম ডিপোতে গিয়েছিলেন। শনিবারের অগ্নিকাণ্ডের পর বিস্ফোরণে আহত হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন আছেন। বিস্ফোরণের পর থেকে তিনি কানে শোঁ শোঁ শব্দ শুনছেন। বুকেও ব্যথা পাচ্ছেন। আগে কখনো তার এসব সমস্যা ছিল না।

তাকে কাউন্সেলিং করছেন কোভিডযোদ্ধা মাঈনুদ্দীন। মাঈনুদ্দীন বলেন, বিএম ডিপোতো বিস্ফোরেণে আহতরা হাসপাতালে আসার খবরে মেডিকেলে আসি। অনেক রোগীকে কাউন্সেলিং করেছি। নুরুল আবছার নামের ওই রোগীর হাত পুড়েছে। দুর্ঘটনার পর থেকে তিনি কানে শোঁ শোঁ শব্দ পাচ্ছেন। আগে তার হার্টের ব্যথা না থাকলেও ঘটনার পর থেকে তার হার্টের ব্যথা শুরু হয়েছে। হার্ট ফাংশন অনিয়মিত হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে আমি কয়েকশ কোভিড রোগীকে কাউন্সেলিং করেছি। তখন কোভিড আক্রান্তরাও বুকে ব্যথা অনুভব করতেন। দীর্ঘদিন ধরে কাজ করার কারণে হার্টের ব্যথায় করণীয় সম্পর্কে রোগীদের সচেতন করি। শ্বাসকষ্ট হলে কীভাবে শ্বাস নিতে হবে বিষয়গুলো রোগীদের শিখিয়ে দিই।

এ বিষয়ে চমেক বার্ন ইউনিটের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. সাম্য দাশ গুপ্ত বলেন, আগুনের ধোঁয়ার কারণে অনেকের শ্বাসনালী ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিস্ফোরণের শব্দে অনেকের কানের পর্দা ফেটে যায়। যে কারণে কানে শোঁ শোঁ শব্দ শুনছেন। একই কারণে বুকে ব্যথাও পাচ্ছেন। চিকিৎসার পর এগুলো ধীরে ধীরে সেরে উঠবে।

এর আগে শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সীতাকুণ্ডের চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কন্টেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। আগুন লাগার পর রাসায়নিকের কন্টেইনারে একের পর এক বিকট বিস্ফোরণ ঘটতে থাকলে বহু দূর পর্যন্ত কেঁপে ওঠে। অগ্নিকাণ্ড ও ভয়াবহ বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ জন হয়েছে। তবে জেলা প্রশাসনের তথ্য মতে মৃতের সংখ্যা ৪৬ জন। দগ্ধ ও আহত ১৬৩ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রাতেই শনাক্ত হওয়া নিহতদের পরিবারে জেলা প্রশাসনের সহায়তার টাকা হস্তান্তর হয়েছে।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মো. ইলিয়াস হোসেন চৌধুরী জানান, নিহতদের মধ্যে ডিপোর শ্রমিকদের পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিসের ৯ সদস্যও রয়েছেন। হাসপাতালে ভর্তি অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

এজেড এন বিডি ২৪/ রেজা

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24