রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৪১ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
আন্তর্জাতিক বিশ্বে বাংলাদেশের কণ্ঠস্বর হতে চান তানজিলা

আন্তর্জাতিক বিশ্বে বাংলাদেশের কণ্ঠস্বর হতে চান তানজিলা

অনলাইন ডেস্কঃ তানজিলা রেজা। বাবা রেজাউদ্দিন স্টালিন একজন স্বনামধন্য কবি ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। তানজিলা নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএ-এমবি পাস করে চলে যান ইংল্যান্ডে। বর্তমানে লন্ডনের কিংস্টন ইউনিভার্সিটিতে মার্কেটিং কমিউনিকেশন এবং বিজ্ঞাপনে পড়ালেখা করছেন এবং ওপেন সোসাইটি ইউনিভার্সিটি নেটওয়ার্কের (ওএসইউএন) সহকারি শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন।

নর্থ সাউথে পড়াকালীন মাকের্টিংয়ে কাজ করে আসা তানজিলা আন্তর্জাতিক মার্কেটিং বিশেষজ্ঞ এবং বাণিজ্য ব্যক্তিত্ব হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে চান। মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক বিশ্বে বাংলাদেশকে তুলে ধরতে চান। বিশ্বে দেশের কণ্ঠস্বর হতে চান নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করতে চাওয়া তানজিলা। পারিবারিক পরিচয় সম্পর্কে তানজিলা বলেন, বাবা একজন কবি ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। তার নাম রেজাউদ্দিন স্টালিন। মা ওয়াহিদা আক্তার একজন শিল্পী এবং তিনি একজন চাকরিজীবী। আমি আমার পিতামাতার একমাত্র সন্তান। তাদের কাছ থেকে ভালো কিছু শিখেছি এবং এখনও শিখছি বলে আমি অত্যন্ত গর্বিত। বাবা-মা আমার আইডল। গত বছর আমি বিয়ে করেছি। স্বামী রাফাত আলম প্রধান একজন আইনজীবী। বর্তমানে তিনি লন্ডনে ইমিগ্রেশন আইনি পরামর্শক হিসেবে একটি সলিসিটর ফার্মে কাজ করছেন।

নিজের পড়ালেখার বিষয়ে তানজিলা বলেন, আমি ম্যাপেল লিফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল থেকে এ-লেভেল, ও-লেভেল করেছি। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএ (ফাইনান্স এবং অ্যাকাউন্টিংয়ে প্রধান) এবং এমবিএ (মার্কেটিংয়ে প্রধান) সম্পন্ন করেছি। এই মুহূর্তে কিংস্টন ইউনিভার্সিটি লন্ডনে পড়াশোনা করছি। মার্কেটিং কমিউনিকেশন এবং বিজ্ঞাপনে এমএসসি করছি। আমি নর্থ সাউথে এমবিএ করার সময় একটি এনার্জি স্টার্টআপে যোগ দেই। সেখানে কাজ করার পর থেকে নিজেকে মার্কেটিং বিশেষজ্ঞ হিসেবে তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেই। মার্কেটিং এবং বাণিজ্য বিষয়ে আমার অনুরাগ আমাকে আরও জ্ঞান অর্জন করতে এবং নিজেকে আরও চ্যালেঞ্জ নিতে সাহায্য করে। আমি বিশ্বাস করি আমি প্রতিদিন নিজেকে উন্নত করছি।

মার্কেটিংয়ে নিজের কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে তানজিলা বলেন, আমি বলব না যে আমি একজন মার্কেটিং বিশেষজ্ঞ। কারণ আমি প্রতিদিন শিখি। তবে পূর্বে আমি বিপণন এবং যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ হিসাবে তিনটি কোম্পানিতে সাড়ে ৩ বছর কাজ করেছি। সেখান থেকে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি। অন্তর্দৃষ্টিপূর্ণ জ্ঞান অর্জন করেছি, যা আমাকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করছে। আমি মার্কেটিংকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। নিজেকে একজন বিশেষজ্ঞ হিসেবে গড়তে চাই।

ইংল্যান্ডে পড়ালেখা ও কাজ প্রসঙ্গে তানজিলা বলেন, এখন ইংল্যান্ডে কিংস্টন ইউনিভার্সিটিতে পড়ালেখার পাশাপাশি ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিতে সোশ্যাল ইন্ট্রাপ্রেনিউরশিপ কোর্সের জন্য ওপেন সোসাইটি ইউনিভার্সিটি নেটওয়ার্কের একজন শিক্ষক সহকারি (টিএ) হিসেবে কর্মরত আছি। কোর্সটি বিশ্বব্যাপী অরোরা উইন্সলেড (স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির টেকসই বিভাগের পরিচালক) এবং স্থানীয়ভাবে ড. সেবাস্টিয়ান গ্রোহের (ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক, এমডি, এবং সিইও – এসওএলশেয়ার) নেতৃত্বে পরিচালিত। পড়াশোনার পাশাপাশি সহযোগী শিক্ষক হিসাবে কাজ করার সুযোগ পেয়ে আমি অত্যন্ত কৃতজ্ঞ।

নিজের স্বপ্ন ও ভবিষ্যত পরিকল্পনা বিষয়ে তানজিলা বলেন, আমি জাতির জন্য অবদান রাখব। আমি মনে করি এখন প্রধান সমস্যা হলো জলবায়ু পরিবর্তন এবং এটি প্রশমিত করার জন্য একজন বিপণনকারী হিসাবে যা যা লাগে আমি তা করতে চাই। জীবাশ্ম জ্বালানি বিক্রি করা বড় কোম্পানিগুলি আমার জন্য একটি বড় সমস্যা। এটা আমার মূল্যবোধ এবং লক্ষ্যের সাথে সংগতিপূর্ণ নয়। আমি আমার দেশ এবং ব্যবসার জন্য আদর্শ নিয়ে কিছু করতে চাই। আমি এমন একটি বিপণন সংস্থার অংশ হতে চাই যা বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করে এবং বিশ্বে একটি উদাহরণ তৈরি করার মতো যৌক্তিক মান অর্জন করে। বিশ্বের কাছে পৌঁছাতে সাহায্য করার জন্য তাদের কণ্ঠস্বর হতে চাই। তিনি আরও বলেন, আমি বাংলাদেশের নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করতে চাই। আমি অন্যকে সাহায্য করতে চাই। এটা ছাড়া কোনো কিছু মঙ্গল বয়ে আনে না।

এজেড এন বিডি ২৪/ রেজা

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24