সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ১০:৩৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
টিকার জন্য ওসমানীতে উপচে পড়া ভিড়

টিকার জন্য ওসমানীতে উপচে পড়া ভিড়

অনলাইন ডেস্কঃ করোনার টিকা দেয়ার শুরু থেকেই সিলেট নগরীর প্রধান কেন্দ্র এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কেন্দ্রে ভিড় লেগেই আছে। প্রতিদিন হাজারো মানুষকে টিকা দেয়া হচ্ছে এই কেন্দ্রে। কিন্তু শনিবার গণটিকা দিতে এই হাসপাতালে ভিড় করেছিলেন কয়েক হাজার মানুষ। টিকা কেন্দ্রের বাইরের চত্বরেও ছিল মানুষের উপচেপড়া ভিড়। ওসমানী হাসপাতালে এতো মানুষের ভিড় এর আগে কোনদিন দেখিনি সিলেটের মানুষ। হাসপাতাল চত্বরে যেন পা ফেলার জায়গা মিলছিল না। দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে মানুষকে টিকা নিতে হয়েছে। এসময় শৃঙ্খলা ও ব্যবস্থাপনা নিয়েও অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সারাদেশের সাথে শনিবার সকাল থেকে সিলেটেও শুরু হয়েছে করোনার গণটিকা কার্যক্রম। এবার সিটি করপোরেশন এলাকাসহ পুরো সিলেট বিভাগে ৭ লাখ মানুষকে টিকার প্রথম ডোজ দেয়ার টার্গেট নেয়া হয়েছে। এক হাজার ৫শ’ কেন্দ্রের মাধ্যমে শুরু হয়েছে টিকাদান।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গণটিকার প্রথম দিন অর্থাৎ শনিবার প্রতিটি ওয়ার্ডে ৩শ’ জন করে বিভাগের ১ হাজার ৫শ’ ওয়ার্ডে মোট সাড়ে চার লাখ মানুষকে টিকা দেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। পরবর্তীতে বাকি আড়াই লাখ টিকা দেয়া হবে।

সিলেট নগরীর ৯৬টি কেন্দ্রে শনিবার টিকা দেয়া শুরু হয়। তবে সকাল থেকে ওয়ার্ডভিত্তিক কেন্দ্রগুলোতে তুলনামূলক মানুষের কম ভিড় দেখা গেছে। যারা ওয়ার্ডভিত্তিক কেন্দ্রগুলোতে টিকা দিয়েছেন তারা অনেকটা স্বস্তিতেই দিয়েছেন। কম ভিড় থাকায় খুব বেশি সময় লাইনে দাঁড়াতে হয়নি। টিকা প্রদানের ব্যবস্থাপনা নিয়েও তারা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

তবে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কেন্দ্রে সকাল থেকে ছিল উপচেপড়া ভিড়। হাসপাতালের সামনের নতুন আউটডোর বিল্ডিংয়ের টিকাকেন্দ্র থেকে শুরু করে সামনের চত্বর পর্যন্ত তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না। হাজার হাজার মানুষকে টিকা দিতে গিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীদেরও হিমশিম খেতে হয়েছে। অনেকে লাইনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে অধৈর্য্য হয়ে ফিরে গেছেন। অনেকে আবার অভিযোগ তুলেছেন ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা কর্মীরা স্বজনপ্রীতি ও অনিয়ম করে লাইন ভেঙ্গে অনেককে টিকা দেয়ার।

নানা কারণে যারা এতোদিন টিকা নিতে অনাগ্রহী ছিলেন গণটিকা কর্মসূচিতে সহজে সেসব লোক টিকা দিতে পেরেছেন বলে জানিয়েছেন জনপ্রতিনিধিরা।

এজেড এন বিডি ২৪/ রামিম

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24