বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:০১ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ: ভারতকে টপকে গেল পাকিস্তান খাগড়াছড়িতে জাতীয় পতাকা প্রদক্ষিণ শোভাযাত্রা যশোরে আনসার-ভিডিপি’র পতাকা র‌্যালি মাদারীপুরে আনসার ও ভিডিপির পতাকা র‍্যালি মানিকগঞ্জে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর পতাকা র‌্যালি কক্সবাজারে যাত্রা শুরু হলো দেশের প্রথম উড়ন্ত রেস্টুরেন্টের টপ চারের একি হাল! লাইসেন্সের মেয়াদ না থাকায় পুলিশ সদস্যকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা সমুদ্রে ডাকাতি, উপকূলে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে মুক্তিপণ আদায় তারামন বিবির মৃত্যুবার্ষিকীতে নেই কোনো সরকারি কর্মসূচি জাহাঙ্গীর আলম কি আওয়ামী লীগে একজনই? বাংলাদেশের পঞ্চাশে বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লবের প্রাসঙ্গিকতা পথশিশুদের নিয়ে এম এ রশিদের গান ডিসেম্বর বাঙালির আনন্দ-গৌরবের মাস ‘উচ্ছৃঙ্খল ছাত্র ও জনতা’র নামে পুলিশের মামলা, আসামি ৮০০
২ বার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছি আমি: বাঁধন

২ বার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছি আমি: বাঁধন

বিনোদন ডেস্কঃ ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ আগামী ১২ নভেম্বর দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে। এরই মধ্যে সিনেমাটির মুক্তির সংবাদ সাড়া ফেলেছে সারা দেশে। কান চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশি তারকা আজমেরী হক বাঁধনের সাফল্যের কথা সবারই জানা। ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ সিনেমার মাধ্যমে কানে বাঁধন যেমন হয়েছেন প্রশংসিত তেমন উজ্জ্বল করেছেন দেশের নাম।

এরপর এই অভিনেত্রী নাম লিখিয়েছেন বলিউডে। সব মিলিয়ে বলা যায় বাঁধন যেন এখন সাফল্যের আকাশে উড়ছেন। অথচ এক সময় আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন এই তারকা। সোমবার (১ নভেম্বর) সাংবাদিকদের সঙ্গে আড্ডায় এই কথা জানিয়েছেন বাঁধন নিজেই।

অভিনেত্রী বলেন, ২০০৫ সালের কথা। সে সময় আমার সঙ্গে অনেক অবিচার হয়েছে এবং পারিবাহিকভাবে অনেক সহিংসতার শিকার হয়েছি। সে কারণেই আমি দুইবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছি। সব মিলিয়ে সে সময়টা আমার জন্য খুবই কঠিন ছিলো। তখন যদি আমি মরে যেতাম অনেক নিউজ হতো। যে যুদ্ধ করতে করতে মরে গেলো মেয়েটি। নির্যাতিতা হতে হতে মারা গেলো। যেহেতু আমি মারা যাইনি তাই আমি মনে করি এখন জীবিত ডাইনি হয়ে গেছি।

বাঁধন মনে করেন, তার এই বেচে যাওয়া জীবনটা এখন সমাজের অন্য নারী যারা বন্দিদশা থেকে মুক্তি চান তাদের জন্য অনুপ্রেরণার, সাহস সঞ্চয়ের। বাঁধন বলেন, আমার আশপাশের নারীরা যারা এই বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেতে চান। তারা যখন আমাকে বলেন আমার কোনো অ্যাচিভমেন্টকে- এটা তাদের অর্জন বলে মনে করে। এটা আমার কাছে অনেক ভালো লাগে এবং বড় প্রাপ্তির মনে হয়।

পর্দার ‘রেহানা’ বলেন, ‘আমার বাচ্চাকে নিয়েও অনেক ঝামেলার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে। তখন আমার হাতে ছিল দুই বছর। ভাবলাম যা আছে কপালে এবার আমি বিসিএস দেবোই। আমার নিজের ওপর যত না কনফিডেন্স, তারচেয়ে বেশি কনফিডেন্স আমার শিক্ষকদের, ফ্রেন্ডদের। কেন না আমি পড়াশোনায় খুবই ভালো ছিলাম। তারা বলল তুমি দিলেই হয়ে যাবে। কোচিং সেন্টারেও ভর্তি হয়েছি।

ফরম পূরণের সময় আমি প্রথম পছন্দ দিয়েছি পুলিশ, সেকেন্ড, সেটাও পুলিশ, আমি জিজ্ঞেস করলাম তিনটাই কি পুলিশ দেওয়া যায়? আমাকে বলল যায় না। যাই হোক ওই পড়ার ভলিয়ুম দেখে, আর আমার বাচ্চাকে লালন পালন তাছাড়া টাকাও ইনকাম করতে হবে। যার কারণে বিসিএসটা দেওয়া হয়নি। বাট ওই পরীক্ষায় আমার নাম থাকবে, আমার অভিনীত সিনেমার নাম থাকবে- এটা আমি কল্পনাও করিনি।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x