শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১২:২০ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
২০ বছর পর আবারও বেন অ্যাফ্লেক-জেনিফার লোপেজের বাগদান রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় শেষ নেই চাঁদাবাজির তবুও ‘বদলি’ খেলোয়াড় তাইজুল! সাকিব আল হাসানের শাশুড়ি আর নেই অভিযুক্তকে আজীবন নিষিদ্ধের দাবি, চাহালকাণ্ডে ক্ষোভে ফুঁসছেন শাস্ত্রী টেকনাফে পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১ ‘ভারতকে বেশি ভালোবাসলে, সেখানে চলে যান’, ইমরানকে মরিয়াম ভাগ্য নির্ধারণী অধিবেশনে অনুপস্থিত ইমরান খান বহ্নি চরিত্রে মিথিলার লুক খুলনায় ট্যাংকলরি শ্রমিকদের কর্মবিরতি সাময়িক স্থগিত ‘প্রেমের প্রস্তাবে’ রাজি না হওয়ায় ওসির মেয়েকে মারধর, মামলা দায়ের ডা. বুলবুল হত্যাকাণ্ড; চার পেশাদার ছিনতাইকারী গ্রেফতার মেয়েদের নিয়ে স্কুল থেকে ফেরা হলো না সাবিনার ‘রাজকুমার’ শাকিবের নায়িকা হচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের কোর্টনি নিয়ম তো সবার জন্য এক মামা, ঋতুপর্ণাকে খোঁচা শ্রীলেখার?
হৃদরোগ বিভাগে যোগ হচ্ছে ১৫ সিসিইউ শয্যা

হৃদরোগ বিভাগে যোগ হচ্ছে ১৫ সিসিইউ শয্যা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) যোগ হচ্ছে ১৫টি শয্যা। হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে শয্যাগুলো বাড়ানো হচ্ছে। ইতোমধ্যে শয্যা সংযোজনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এর মাধ্যমে বর্তমানের চেয়ে দ্বিগুণ রোগী সিসিইউ সেবা পাবে।

জানা যায়, হৃদরোগ বিভাগে সিসিইউ চালু হয় ১৯৮৯ সালে। বর্তমানে সিসিইউতে ১৬টি শয্যা আছে। তবে তা রোগীর তুলনায় খুবই অপ্রতুল। কিন্তু সিসিইউতে গড়ে ৪০ জন রোগী ভর্তি থাকেন। তাছাড়া হৃদরোগ বিভাগে নিয়মিত ভর্তি থাকে আড়াইশ’ থেকে তিনশ’ রোগী। এর মধ্যে শতাধিক রোগীকে সিসিইউতে রাখতে হয়। কিন্তু শয্যার অভাবে অনেক রোগী সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। কখনো মেঝেতে, খকনো বারান্দায় পর্যন্ত রোগী রাখতে হয়েছে। চমেক হাসপাতাল রোগী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সমাজসেবা কর্মকর্তা অভিজিৎ সাহা বলেন, ‘হৃদরোগ বিভাগের সিসিইউতে ১৫টি শয্যা দেওয়া হচ্ছে। প্রতি শয্যার বিপরীতে প্রায় এক লাখ ৭০ হাজার খরচ ধরা হয়েছে। পাশাপাশি সিসিইউর এয়ার কন্ডিশনারগুলো (এসি) মেরামত করে দেওয়া হবে। সব উপকরণ সংগ্রহ শেষে সংযোজন কাজ চলছে। আশা করছি, আগামী সপ্তাহে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করা সম্ভব হবে।’

হৃদরোগ বিভাগের প্রধান প্রবীর কুমার দাশ বলেন, ‘হৃদরোগে আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীদের এক ঘণ্টার মধ্যে সিসিইউতে প্রয়োজনীয় সেবা দেওয়া গেলে রোগীর অবস্থা ভালো রাখা যায়। নয়তো দুর্ঘটনার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু আমাদের শয্যা সীমিত। চাহিদার তুলনায় সিসিইউ শয্যা অপ্রতুল। এজন্য অনেক রোগী সেবা থেকে বঞ্চিত হন। রোগী কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে ১৫টি সিসিইউ শয্যা যোগ হচ্ছে। এটি একটি ভাল উদ্যোগ। এর মাধ্যমে আরো কিছু জটিল রোগী সিসিইউ সেবা পাবে।

এজেড এন বিডি ২৪/ তমাল

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x