মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৪০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
পানির সঙ্গে এসিড মিশিয়ে স্বামীকে হত্যা নোয়াখালীতে জাল ভোট দিতে গিয়ে দুই সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ধরা ‘আমাকে আর ইভা রহমান ডাকবেন না’ আবার বিয়ে করলেন ইভা রহমান, মাহফুজুর রহমানের সঙ্গে বিচ্ছেদ ব্যবসায়ী সোহেল আরমানের ঘরে ইভা রহমান বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী সৌদি আরব এক হাত নিয়েই জীবনযুদ্ধে লড়ছেন সাইফুল সাংবাদিকদের ব্যাংক হিসাব তলবের চিঠি অপ্রত্যাশিত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পরিবারের সঙ্গে অভিমান করে গলায় ফাঁস দিল যুবক নরসিংদী সদর ইউএনও’র ফোন নম্বর ক্লোন করে চাঁদা দাবি নানার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে লাশ হলো শিশু স্বচ্ছ থাকলে সাংবাদিক নেতাদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই: তথ্যমন্ত্রী শীতলা বাড়িতে এবার অজান্তা প্রতিমায় দুর্গাপূজা দুর্গাপূজায় ৩ কোটি টাকা অনুদান প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রীর সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার কারণেই মহামারিতে রূপ নিতে পারেনি করোনা: নৌপ্রতিমন্ত্রী
শ্বাসরোধে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয় কনস্টেবলের স্ত্রীকে

শ্বাসরোধে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয় কনস্টেবলের স্ত্রীকে

অনলাইন ডেস্কঃ মানিকগঞ্জে ভাড়া বাসায় পুলিশ কনস্টেবলের স্ত্রী বিলকিস আক্তার হত্যার তিনদিন পর রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার লুটে নেয়ার জন্যই জুস ও কোমল পানীয়ের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাওয়ানোর পর বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয় বিলকিসকে। হত্যার আগে তাকে ধর্ষণও করা হয়।
এ ঘটনায় নারীসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- রাজবাড়ী সদর উপজেলার হুগলাডাঙ্গি গ্রামের মো. কবির হোসেন , তার স্ত্রী আঁখি মনি ওরফে লিপি আক্তার, একই গ্রামের রিয়াজ উদ্দিন সরদার ও বগুড়ার ভান্ডারবাড়ি গ্রামের মো. শাকিল হাসান। তারা সবাই সাভারের আশুলিয়ায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন।

বুধবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান মানিকগঞ্জের এসপি মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান।

এসপি জানান, ঘটনার দিন পূর্ব পরিচিত লিপি আক্তার ওরফে আঁখি ঘুমের ওষুধ মেশানো জুস ও কোমল পানীয় নিয়ে বিলকিসের বাড়িতে বেড়াতে যান। এরপর রাতে আঁখির স্বামী কবির হোসেনসহ আরো তিনজন আসেন। তারা বিলকিসকে কোমল পানীয় ও তার দুই ছেলেমেয়েকে জুস পান করতে দেন। পরে বিলকিস ও তার ছেলে ফাহিম ঘুমিয়ে পড়ে কিন্তু বিলকিসের মেয়ে দোলা আক্তার কিছুক্ষণ জেগেই ছিল। সে পাশের ঘরের দরজার ফাঁকা দিয়ে দেখতে পায় ঘাতকরা তার মায়ের হাত-পা বাঁধছে। ভয়ে কিছু না বলে ভাইয়ের পাশে শুয়ে থাকে মেয়েটি। এক পর্যায়ে সেও ঘুমিয়ে পড়ে। সকালে ঘুম থেকে উঠে মায়ের লাশ দেখতে পেয়ে আশপাশের লোকজনকে ডেকে আনে দুই ছেলেমেয়ে।

তিনি আরো জানান, বিলকিসের হাত-পা ও মুখ বাঁধার পর আসামি রিয়াজ উদ্দিন তাকে ধর্ষণ করে। এরপর স্বর্ণালঙ্কার ও টাকা লুট করে পালিয়ে যায়। প্রাথমিক তদন্তে বিলকিসের মেয়ের কাছ থেকে প্রথমে শুধু লিপি ওরফে আঁখির নাম জানতে পারে পুলিশ। এরপর তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় সাভার, গাজীপুর ও পাবনায় অভিযান চালিয়ে লিপিসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। ওই সময় তাদের কাছ থেকে তিনটি মোবাইল ও স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা হয়।

বুধবার দুপুরে আসামিরা হত্যার স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান এসপি মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান।

সংবাদ সম্মেলনে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x