শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১১:২২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
২০ বছর পর আবারও বেন অ্যাফ্লেক-জেনিফার লোপেজের বাগদান রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় শেষ নেই চাঁদাবাজির তবুও ‘বদলি’ খেলোয়াড় তাইজুল! সাকিব আল হাসানের শাশুড়ি আর নেই অভিযুক্তকে আজীবন নিষিদ্ধের দাবি, চাহালকাণ্ডে ক্ষোভে ফুঁসছেন শাস্ত্রী টেকনাফে পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১ ‘ভারতকে বেশি ভালোবাসলে, সেখানে চলে যান’, ইমরানকে মরিয়াম ভাগ্য নির্ধারণী অধিবেশনে অনুপস্থিত ইমরান খান বহ্নি চরিত্রে মিথিলার লুক খুলনায় ট্যাংকলরি শ্রমিকদের কর্মবিরতি সাময়িক স্থগিত ‘প্রেমের প্রস্তাবে’ রাজি না হওয়ায় ওসির মেয়েকে মারধর, মামলা দায়ের ডা. বুলবুল হত্যাকাণ্ড; চার পেশাদার ছিনতাইকারী গ্রেফতার মেয়েদের নিয়ে স্কুল থেকে ফেরা হলো না সাবিনার ‘রাজকুমার’ শাকিবের নায়িকা হচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের কোর্টনি নিয়ম তো সবার জন্য এক মামা, ঋতুপর্ণাকে খোঁচা শ্রীলেখার?
রাশিয়ার বোমায় ক্ষতবিক্ষত হয়েও বললেন দেশের জন্য মরতে প্রস্তুত

রাশিয়ার বোমায় ক্ষতবিক্ষত হয়েও বললেন দেশের জন্য মরতে প্রস্তুত

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকঃ পুরো মুখে রক্তের দাগ, চেহারা ‍কিছুটা শুকিয়ে গেছে; যন্ত্রণাবিদ্ধ কিন্তু কঠোর মুখ, চোখের চাহনিতে দৃঢ়তা- এই ছবিই এখন গোটা বিশ্বের সামনে রাশিয়ার আগ্রাসনের মুখ হয়ে উঠেছে।

ঘটনাস্থল যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেন। রক্তমাখা মুখটি দেশটির খারকিভ অঞ্চলের চুগুয়েভ শহরের এক নারী শিক্ষকের। নাম ওলেনা কুরিলো।

গত তিন দিন ধরে রাজধানী কিয়েভ এবং খারকিভ শহরে অনবরত বোমাবর্ষণ, ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে যাচ্ছে রুশ সৈন্যরা। তেমনই একটি বোমা এসে পড়েছিল ৫২ বছর বয়সী এই শিক্ষকের বাড়িতে। বিকট শব্দে চারপাশ কেঁপে উঠেছিল। বোমার অভিঘাতে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়েছিল বাড়িটি। কিন্তু ভাগ্যের জোরে বেঁচে যান কুরিলো। বিস্ফোরণের কাচের একটি বড় টুকরা তার মুখে এসে আঘাত করে। ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায় মুখ।

তাকে উদ্ধার করে ইউক্রেনের সৈন্যরা। পরে চিকিৎসা দেওয়া হয় তাকে। মাথায় ব্যান্ডেজ বাঁধা। সারা মুখে রক্তের দাগ। শুকিয়েও গেছেন। মৃত্যুর মুখ থেকে বেঁচে ফিরে তিনি যেন আরও দৃঢ় কঠোর। রাশিয়াকে রুখতে নিজের জীবন দিতেও প্রস্তুত।

ইতিহাসের শিক্ষক কুরিলো। যুদ্ধের অনেক ইতিহাসই তার নখদর্পণে। কিন্তু নিজে সেই যুদ্ধের শিকার হবেন কখনও ভাবতে পারেননি বলেই জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ইউক্রেন আমার জন্মভূমি। আমার মাতৃভূমিকে রক্ষার জন্য যা করতে হয় তাই করব। আনন্দবাজার।

এজেড এন বিডি ২৪/ ডন 

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x