বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৪:২৬ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
সঙ্গী পেল সাফারি পার্কের সাম্বার হরিণ মেহেরপুরে মাদক ব্যবসায়ীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বদরুন্নেসার শিক্ষিকা রুমা রিমান্ডে বিশ্বকাপ জেতার দৌড়ে ভারতকে এগিয়ে রাখছেন ইনজামাম শুরুতেই ফিরলেন নাইম মুস্তাফিজের যে রেকর্ড ভাঙলেন আইরিশ পেসার অ্যাডায়ার টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ নতুন সোশ্যাল মিডিয়া চালুর ঘোষণা ট্রাম্পের মাত্র এক বছরের এই শিশুর উপার্জন প্রায় ৮৬ হাজার টাকা সন্তানকে ডুবতে দেখে ঝাঁপ দিলেন মা, বাঁচল না কেউই কাচের বোতলে পানি খেলে হতে পারে ভয়ংকর রোগ ক্ষমতায় যেতে ফের পাকিস্তানের দ্বারস্থ বিএনপি সিরিয়ায় ১৪ নিহত সেনার প্রতিশোধ নিতে ১২ জনকে হত্যা বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস শুরু উজানের ঢলে গাইবান্ধায় তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি
রহস্যময় দলাহি কুণ্ড, হাততালির সঙ্গে নেচে ওঠে পানি

রহস্যময় দলাহি কুণ্ড, হাততালির সঙ্গে নেচে ওঠে পানি

ফিচার ডেস্ক: ভারতের প্রাচীন নিদর্শনের স্মৃতিচিহ্ন বহন করে টিকে থাকা কুণ্ডগুলোর মধ্যে অন্যতম দলাহি। এসব কুণ্ডগুলোর রহস্য এখনও উন্মোচিত হয়নি। তেমনই একটি রহস্যময় দলাহি কুণ্ড। শোনা যায়, এই কুণ্ডের সামনে হাততালি দিলেই পানির মধ্যেই একটা উথালপাতাল হয়। নেচে ওঠে জল। যার রহস্য আজো জানা যায়নি। দলাহি কুণ্ডের এই বিশেষত্বের কারণেই দূরদূরান্ত থেকে বহু মানুষ ছুটে আসেন।

কেন এমন হয়, তার কারণ নাকি আজও খুঁজে পাননি বিজ্ঞানীরা। ঝাড়খণ্ড থেকে ২৭ কিলোমিটার দূরে বোকারোতে রয়েছে ‘রহস্যময়’ এই কুণ্ড। বিজ্ঞানীরা দলাহি কুণ্ডের এই বিশেষত্ব নিয়ে নানা পরীক্ষানিরীক্ষা করেছেন। তাদের ধারণা, এই কুণ্ডের পানি জামুই নালার মধ্যে দিয়ে বাহিত হয়ে সোজা গঙ্গায় গিয়ে মেশে। সরু নালার মধ্য দিয়ে পানি অনেক গভীরে চলে যায়। বিজ্ঞানীদের ধারণা, হাততালিতে যে শব্দতরঙ্গের সৃষ্টি হয়, তারই প্রভাবে পানি নেচে ওঠে। কিন্তু এটাই যে একমাত্র কারণ। তবে এর কোনো পাকাপোক্ত প্রমাণ মেলেনি। ফলে আজও রহস্য থেকে গিয়েছে দলাহি কুণ্ড।

এমনকি আরো দাবি করা হয় যে, গ্রীষ্মের সময় এই কুণ্ডের পানি থেকে একেবারে ঠাণ্ডা। আবার শীতকালে পানি থাকে উষ্ণ। স্থানীয়দের মধ্যে এটাও প্রচলিত যে, এই কুণ্ডের পানির ঔষধি গুণ রয়েছে। এর জলে স্নান করলে নাকি চর্মরোগ দূর হয়ে যায়।  তবে এই কুণ্ডের পানিতে ঔষধি গুণাগুণ আছে, এমন কোনো প্রমাণ মেলেনি কোথাও। দলাহি কুণ্ডকে ঘিরে স্থানীয়দের মধ্যে বিশ্বাস এবং আস্থা রয়েছে। যা দূর দূরান্তেও ছড়িয়েছে। ফলে প্রতি বছর মকর সংক্রান্তির দিন এই কুণ্ডকে ঘিরে মেলা বসে।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x