শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০১:০২ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
২০ বছর পর আবারও বেন অ্যাফ্লেক-জেনিফার লোপেজের বাগদান রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় শেষ নেই চাঁদাবাজির তবুও ‘বদলি’ খেলোয়াড় তাইজুল! সাকিব আল হাসানের শাশুড়ি আর নেই অভিযুক্তকে আজীবন নিষিদ্ধের দাবি, চাহালকাণ্ডে ক্ষোভে ফুঁসছেন শাস্ত্রী টেকনাফে পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১ ‘ভারতকে বেশি ভালোবাসলে, সেখানে চলে যান’, ইমরানকে মরিয়াম ভাগ্য নির্ধারণী অধিবেশনে অনুপস্থিত ইমরান খান বহ্নি চরিত্রে মিথিলার লুক খুলনায় ট্যাংকলরি শ্রমিকদের কর্মবিরতি সাময়িক স্থগিত ‘প্রেমের প্রস্তাবে’ রাজি না হওয়ায় ওসির মেয়েকে মারধর, মামলা দায়ের ডা. বুলবুল হত্যাকাণ্ড; চার পেশাদার ছিনতাইকারী গ্রেফতার মেয়েদের নিয়ে স্কুল থেকে ফেরা হলো না সাবিনার ‘রাজকুমার’ শাকিবের নায়িকা হচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের কোর্টনি নিয়ম তো সবার জন্য এক মামা, ঋতুপর্ণাকে খোঁচা শ্রীলেখার?
বালিশ কেনার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা ছাত্রদলের নেতা ছিলেন: প্রধানমন্ত্রী

বালিশ কেনার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা ছাত্রদলের নেতা ছিলেন: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পের আওতায় আসবাবপত্র ও বালিশ ক্রয়সহ অন্যান্য কাজের অস্বাভাবিক ব্যয় দেখানো অভিযুক্ত কর্মকর্তা ছাত্রদল করতেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, যে ভদ্রলোক এই বালিশকাণ্ড ঘটিয়েছেন, আমি খোঁজ নিয়ে জেনেছি তিনি (প্রকৌশলী মাসুদুল আলম) এক সময় বুয়েট ছাত্রদলের নির্বাচিত ভিপি ছিলেন। এসব মানুষ যতদিন দায়িত্বে থাকবে ততদিন দুর্নীতি তো কিছু হবেই। যাই হোক, সে ভদ্রলোককে প্রত্যাহার করা হয়েছে।
সোমবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটের আলোচনায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের পক্ষে অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

২০১৮-১৯ সালের সম্পূরক বাজেটের ওপর আলোচনা শুরু হয়ে গতকাল রবিবার। সোমবার সম্পূরক বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনার পর তা কণ্ঠ ভোটে পাস হয়। অর্থমন্ত্রীর পক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পূরক বাজেট পাস ও মঞ্জুরি বরাদ্দ পাস করার প্রস্তাব করেন।

গণফোরামের সংসদ সদস্য মোকাব্বির খানের অভিযোগের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের আরেকজন মাননীয় সংসদ সদস্য বললেন, সুশাসনের অভাব। উনি যে দল থেকে এসেছেন, নবগঠিত দল। আসলে আওয়ামী লীগ ভেঙ্গেই ওই দলটি গড়া হয়েছিল। উনাদের নেতা আওয়ামী লীগই করতেন। তারপর চলে গিয়েছিলেন। কাজেই তার দলে কী ডিসিপ্লিনটা আছে? কী দলতন্ত্রটা আছে? যার নিজের দলেই সুশাসন নেই, গণতন্ত্র নেই, ডিসিপ্লিন নেই। যেখানে কেউ কথা বলতে গেলেই বলেন, খামোশ। তার কাছ থেকে কী আশা করা যায়?

এজেড এন বিডি ২৪/ শেমল

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x