মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
১২ কেজি এলপিজির দাম কমলো ৮৫ টাকা ‘আবারও অনুরোধ করছি, হাফ ভাড়া বাস্তবায়ন করুন’ ঢাকাপ্রকাশ’র যাত্রা শুরু আলাউদ্দিন হোসেনের তিনটি ছড়া হারানো মোবাইল উদ্ধার করবেন যেভাবে ‘হর্নবিল ফেস্টিভ্যাল’ সম্পর্কিত অজানা যত তথ্য রূপগঞ্জে ‘ঢাকাই মসলিন হাউস’ প্রতিষ্ঠা করবে বস্ত্র মন্ত্রণালয় পার্বত্য শান্তিচুক্তি : পাহাড়ি-বাঙালিকে ঐক্যবদ্ধ করেছে শান্তি চুক্তির দুই যুগ এবং আঞ্চলিক রাজনীতির জটিল সমীকরণ হাফ ভাড়া তামাশা ‘নিরাপত্তাহীনতায়’ আলেশা মার্ট বন্ধ ঘোষণা হাঁটতে গিয়ে হাঁপিয়ে ওঠা কেন? বিকেএসপিতে ৩৮ জনের চাকরির সুযোগ একহাতে ১৩ টেনিস বল রেখে গিনেস বুকে বাংলাদেশি মনিরুল নিজেকে সামলাতে পারবেন পূজা?
বাবাকে গ্রেফতার করায় থানার ভেতরে এসে বিষপান করল ছেলে

বাবাকে গ্রেফতার করায় থানার ভেতরে এসে বিষপান করল ছেলে

অনলাইন ডেস্কঃ বালুমহাল ও জায়গার বিরোধকে কেন্দ্র করে বুধবার দুপুর ২টায় চট্টগ্রামের বাঁশখালী প্রধান সড়কের মনছুরিয়া বাজার এলাকায় চাচা-ভাতিজা খুন হয়েছেন। পুলিশ আসামি গ্রেফতারের পর থানার ভেতরে এক আসামির বিষপানের ঘটনাও ঘটেছে।

সন্ত্রাসীরা বাজারের মধ্যে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাত ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে চাচা সোলতান মাহমুদ টিপু ও ভাতিজা আব্দুল খালেককে হত্যা করে। ওই ঘটনায় মো. কামাল উদ্দিন, মনজুর ও বাহাদুরসহ ৩ জন গুরুতর আহত হন। গ্রেফতারের পর রাসেল নামের এক ওই যুবক বিষপান করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাপপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নিহত আব্দুল খালেকের মা বাদী হয়ে গত বুধবার রাতেই ১০ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৬ জনকে অজ্ঞাত দেখিয়ে মামলা করেন। পুলিশ এজাহারনামীয় ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে। তাদের মধ্যে আহত বাহাদুর, মনজুর এবং বিষপান করা মো. রাসেল যথাক্রমে হত্যা মামলার ১, ২ ও ৪ নম্বর আসামি হিসেবে পুলিশি হেফাজতে চিকিৎসাধীন আছেন। হতাহত প্রত্যেকের বাড়ি বাঁশখালী পৌরসভার দক্ষিণ জলদী গ্রামের রঙ্গিয়াঘোনা এলাকায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আব্দুল খালেক ও সোলতান মাহমুদ টিপু হত্যার ঘটনায় এজাহারনামীয় আসামি শীলকূপের মো. ছিদ্দিককে গ্রেফতার করলে তার ছেলে মো. রাসেল থানার ভেতরে এসে পুলিশের সামনে বিষপান করেন। বিষপানের কারণ হিসেবে চিৎকার করে বলতে থাকেন, আমার বাবা হত্যার সঙ্গে জড়িত নয়, পুলিশ অন্যায়ভাবে আমার বাবাকে ধরেছে, তাই বিষপান করে আত্মহত্যা করব। এসব বলেই তিনি সঙ্গে করে নিয়ে আসা বিষ মুখে ঢেলে দেন। মো. রাসেল বিষপান করার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ তাকে বাঁশখালী হাসপাতালে ভর্তি করায়। ওখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়। নিহতের মা বাদী হয়ে মো. রাসেলকে এজাহারে ৪ নম্বর আসামি করেছেন।

নিহত আব্দুল খালেক বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলা সংগঠনের বাঁশখালী উপজেলা শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক। তিনি রাজনীতির পাশাপাশি একটি ওষুধ কম্পানির এমআর হিসেবে চাকরি করতেন এবং স্থানীয় একটি বালুমহাল ব্যবসায় জড়িত ছিলেন। তার নিহত চাচা সোলমাহমুদও ছাত্র রাজনীতি করতেন। তাদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বাঁশখালী ইকোপার্ক সংলগ্ন শীলকূপ আশিঘর পাড়া এলাকার একটি বালুমহাল ও পৈতৃক সম্পত্তি নিয়ে স্থানীয় কিছু যুবক এবং কাছিম আলীর ছেলেদের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল। গত একমাস ধরে কয়েক দফা মারামারির ঘটনাও ঘটেছে। সর্বশেষ গত বুধবার দুপুর ১২টায় কাছিম আলীর ছেলেদের সঙ্গে তাদের পাড়া রঙ্গিয়াঘোনা এলাকায় হাতাহাতি ও ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে। এর দুই ঘণ্টা পর বাড়ির পাশে মনছুরিয়া বাজার এলাকায় আব্দুল খালেক ও তার চাচা সোলতান মাহমুদ টিপু গেলে ওত পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা তাদের প্রকাশ্যে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত ও হাতুড়িপেটা করতে থাকে। ওইসময় বাজারে অনেক লোকজন ছিল। এ ঘটনায় অন্যান্যরাও আহত হন।

বাঁশখালী থানার ওসি মো. কামাল উদ্দিন বলেন, জায়গার বিরোধকে কেন্দ্র করে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। নিহত আব্দুল খালেকের মা বাদী হয়ে ১০ জনকে আসামি করে মামলা দিয়েছেন। হত্যার মূল হোতাসহ এজাহারনামীয় ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিষপান করা আসামি মো. রাসেল পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন রয়েছে ।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x