শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০১:২৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
করোনায় প্রাণ হারালেন আরও ৪ জন সেই বিচারকের ভুল ছবি দিয়ে তসলিমার টুইট সিডরে ভেসে যাওয়া সেই রিয়া এখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী বিশ্বকাপে কোন দল কত টাকা পেল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কতটি ছক্কা হাঁকিয়েছেন ছক্কার রাজা পরিবহণ ধর্মঘট বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডাকা বৈঠক হঠাৎ স্থগিত আফগানরা না জিতলে কী করবে ভারত, জানালেন জাদেজা শেষ দুই বলের ছক্কায় উইন্ডিজের সংগ্রহ ১৫৭ বিদায় ইউনিভার্স বস মোশাররফ করিমের সঙ্গী হচ্ছেন পার্নো মিত্র ‘জীবনটা কফির মতো’ দাবি না মানলে ধর্মঘট চলবে চট্টগ্রামে পরিবহণ ধর্মঘট প্রত্যাহার পুরো কুরআনের ক্যালিগ্রাফি এঁকে প্রশংসায় ভাসছেন তরুণী দুবাইয়ে বাংলাদেশের পতাকার ফেরিওয়ালা তিনি
পুরুষাঙ্গের মতো স্তম্ভ অবাক করলো প্রত্নতাত্ত্বিকদের

পুরুষাঙ্গের মতো স্তম্ভ অবাক করলো প্রত্নতাত্ত্বিকদের

ফিচার ডেস্ক: প্রাগৈতিহাসিক মানুষরাও একসময় নানান স্থাপত্য তৈরি করেছিলেন। আর সেই স্থাপত্যগুলো আমাদের কল্পনার বাইরে। প্রাচীন হরপ্পা, মিশর বা মায়া সভ্যতার অনেককিছুই এখনো আবিস্কার হয়নি। এরমধ্যেই প্রত্নতাত্ত্বিকরা তুরস্কে আবিস্কার করলেন একটি অদ্ভুত নগরী।

একটি পাহাড়ের নীচে মাটি খুঁড়ে বার করলেন ১১ হাজার বছরের পুরোনো শিল্পকৃতি

একটি পাহাড়ের নীচে মাটি খুঁড়ে বার করলেন ১১ হাজার বছরের পুরোনো শিল্পকৃতি

একটি পাহাড়ের নীচে মাটি খুঁড়ে বার করলেন ১১ হাজার বছরের পুরোনো শিল্পকৃতি। সেখানে দেওয়ালে তৈরি একটি মানুষের আকৃতির মূর্তি এবং লিঙ্গ আকৃতির স্তম্ভ পাওয়া গিয়েছে। যা প্রত্নতাত্ত্বিকদের অবাক করেছে। তারা এই স্থাপত্যকৃতি নিয়ে এখনও গবেষণা করছেন। তবে এখনো এই প্রাচীন এলাকাটির সম্পর্কে কিছুই জানা যায়নি।

মানুষের মুখ

মানুষের মুখ

এই স্থানটির নাম দক্ষিণ তুরস্কের সানলিউরফার একটি এলাকায়। জায়গাটির নাম কারহান্তেপে। প্রত্নতাত্ত্বিকরা মনে করছেন এই প্রাচীন জায়গায় একসময় কোনো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বা কুচকাওয়াজ হতো। ইস্তাম্বুল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাগৈতিহাসিক বিশেষজ্ঞ নেকমি কারুল এই প্রত্নতাত্ত্বিক দলের প্রধান। তিনি জানিয়েছেন, এই স্থাপত্যগুলি এবং দেওয়ালগুলো সেই সময়কার যখন মানুষ লিখতে শেখেনি। তিনি টার্ক আরকেওলোজি এবং এটোগ্রাফিয়া ডেরগিসি নামে তার গবেষণাপত্রটি একটি জার্নালে প্রকাশ করেছেন।

মানুষের মুখের এবং লিঙ্গ আকৃতির স্থাপত্যগুলো তৈরি করা হয়েছিল

মানুষের মুখের এবং লিঙ্গ আকৃতির স্থাপত্যগুলো তৈরি করা হয়েছিল

তবে তিনি এটা প্রকাশ করেননি কেন এই মানুষের মুখের এবং লিঙ্গ আকৃতির স্থাপত্যগুলো তৈরি করা হয়েছিল। বা এগুলির পিছনে আসল উদ্দেশ্যই বা কী ছিল। তবে তিনি জানিয়েছেন, যেখানে এই মূর্তিগুলো পাওয়া গিয়েছে সেখানে একটি ভবন ছিল। যা তিনটি পৃথক ভবনের সঙ্গে যুক্ত ছিল। তবে সবকিছু দেখে তার মনে হয়েছে এটি একটি জটিল কোনও বিষয়ের জন্য তৈরি হয়েছিল। তবে তিনি আরো বলেছেন, এখনও অনেক খননকাজ বাকি, তাই আশা করা যায় আগামীদিনে আরো এর রহস্য উদ্ধার করা যাবে।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x