সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্বের বাধ্যবাধকতা তুলে নিল সৌদি নুসরাতের মামলা: অসংলগ্ন অনুমান আর কল্পনা মানুষের জীবনের থেকেও কি ধর্ম বড়, প্রশ্ন শ্রীলেখার স্ত্রীকে রেখে দশম শ্রেণির ছাত্রীকে বিয়ে করলেন শিক্ষক হাতির পিঠে চড়ে মনোনয়ন জমা সনাতন ধর্মাবলম্বীর সৎকারে এগিয়ে এলো মুসলিমরা আবারও বাড়ছে ভোজ্যতেলের দাম বগুড়ার অপু বিশ্বাস যেভাবে সিনেমার নায়িকা হলেন শহীদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন আজ স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু বাংলাদেশের বাংলাদেশের সামনে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিল স্কটল্যান্ড মালিঙ্গাকে পেছনে ফেলে বিশ্ব রেকর্ড সাকিবের কাপাসিয়ায় ১১ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ৫০ জন লক্ষ্মীপুরে ৪ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ২৮ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল বাংলাদেশের দাপুটে বোলিংয়ে কোণঠাসা স্কটল্যান্ড
ডাক বাংলোয় শিয়ালের হুক্কাহুয়া ডাক, সাপের ফোঁস ফোঁস শব্দ

ডাক বাংলোয় শিয়ালের হুক্কাহুয়া ডাক, সাপের ফোঁস ফোঁস শব্দ

অনলাইন ডেস্কঃ যথাযথ নজরদারী ও রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে কুমিল্লার তিতাস উপজেলার ডাকবাংলোটি বেহাল অবস্থায় পড়ে আছে দীর্ঘ দিন ধরে।

সরেজমিনে গিয়ে ভবনের চার পাশ ঘুরে দেখা গেছে , ঝোপ-জঙ্গল, শিয়াল ও বিষাক্ত সাপ, পোকা-মাকড়ে ভরে আছে এই ভবনটি। ব্যবহারের অনুপযোগী এই ভবনটি দ্রুত ব্যবহার উপযোগী করার দাবি জানিয়েছেন তিতাসবাসী।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার গাজিপুরে অবস্থিত ডাক বাংলো ভবনের বাহিরে প্রাচীর রয়েছে। আর এই প্রাচীরের ভেতরে ঝাড়-জঙ্গল, দুর্গন্ধ ময়লা- আবর্জনা ও শিয়াল, সাপ, বিড়াল ও পোকামাকড়ের আস্থানা।

দুই তলা এ ভবনটির নিচ তলার কয়েকটি রুমের জানালার কাচ ভেঙে গেছে। হঠাৎ ভবনটি দেখে যে কারো মনে হবে এটি ডাকবাংলো নয় যেন গহিন জঙ্গল। অযত্নে অবহেলায় ভবনের চারপাশে বড় বড় বিভিন্ন প্রজাতির গাছ জন্মে জঙ্গলে ছেয়ে গেছে। সংস্কার ও পরিচর্যার অভাব এবং বৃষ্টির পানিতে ভবনের দেয়াল ও প্রাচীরগুলো ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

মেইন গেটের সামনে ডাক বাংলো কথাটি লেখা থাকলেও সেখানে দেখা গেছে গেইটের রডগুলোতে ভেজা কাপড় ঝুলিয়ে শুকাচ্ছেন আশপাশের লোকজন। বছরের পর বছর অতিবাহিত হলেও দেখা যায়নি কখনো ডাকবাংলোটির গেট খুলতে। বোঝার কোনো উপায় নেই এটি একটি সরকারি ভবন। তবে ডাকবাংলোটির দেখা শোনার জন্য আগে এক ব্যক্তি দায়িত্বে থাকলেও এখন আর তার দেখা মেলেনা। কোনো একটা সময় দায়িত্ব পালনের অবহেলার ও বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলার অনেক কর্মকর্তা বলেন, বাইরের যে অবস্থা ভেতরের অবস্থা তার চেয়ে কয়েকগুণ খারাপ। রাত হলেই শেয়াল, কুকুর, বিষাক্ত সাপ আর বেড়ালের ভয়ানক ডাক শোনা যায়। নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ভবনের ভেতরে থাকা আসবাবপত্র ও ফার্নিচার। ধুলো আর ময়লা ছাড়া তিল ধারনের জায়গা নেই ভবনের ভেতরে।

ডাকবাংলোর পাশের বাসার এক গৃহবধূ জানান, প্রতিদিন রাতে আমাদের হাঁস মুরগি এমনকি ছাগল পর্যন্ত নিয়ে যায় নেকড়ে শিয়ালের দল। তাছাড়া রাত হলেই শুরু হয় শিয়ালের হুক্কাহুয়া ডাক ও বিষধর সাপের ভয়ানক ফোঁস ফোঁস শব্দ।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. নুরনবী বলেন, তিতাস ডাকবাংলোটি বসবাসের অনুপযোগী। চার পাশ ঝাড় জঙ্গলে ছেয়ে গেছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে সংস্কার করার অনুরোধ করব।

তিতাসের ইউএনও এটি এম মোর্শেদ বলেন, তিতাসের ডাকবাংলোটির বিষয়ে আমার জানা নেই। এই প্রথম শুনলাম। তবে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ বিষয়ে আমাদের তেমন সংশ্লিষ্টতা নেই, আছে জেলা পরিষদের। তথাপিও বিষয়টি দেখব।

কুমিল্লা জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাা মো. হেলাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি নিজেও এটি দেখে এসেছি। এই ডাক বাংলোটি করা হয়েছে উপজেলা থেকে অনেক দূরে। এই ভবনটি জেলা পরিষদ করলেও তার রক্ষণাবেক্ষণ করার দায়িত্ব ইউএনওদের। কিন্তু কোনো ইউএনও এটির রক্ষণাবেক্ষণ না করাতে আর কোনো অতিথি না যাওয়াতে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমান ইউএনও এই বিষয়ে আন্তরিক।

এজেড এন বিডি ২৪/ তমা

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x