সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০৩ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্বের বাধ্যবাধকতা তুলে নিল সৌদি নুসরাতের মামলা: অসংলগ্ন অনুমান আর কল্পনা মানুষের জীবনের থেকেও কি ধর্ম বড়, প্রশ্ন শ্রীলেখার স্ত্রীকে রেখে দশম শ্রেণির ছাত্রীকে বিয়ে করলেন শিক্ষক হাতির পিঠে চড়ে মনোনয়ন জমা সনাতন ধর্মাবলম্বীর সৎকারে এগিয়ে এলো মুসলিমরা আবারও বাড়ছে ভোজ্যতেলের দাম বগুড়ার অপু বিশ্বাস যেভাবে সিনেমার নায়িকা হলেন শহীদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন আজ স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু বাংলাদেশের বাংলাদেশের সামনে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিল স্কটল্যান্ড মালিঙ্গাকে পেছনে ফেলে বিশ্ব রেকর্ড সাকিবের কাপাসিয়ায় ১১ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ৫০ জন লক্ষ্মীপুরে ৪ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ২৮ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল বাংলাদেশের দাপুটে বোলিংয়ে কোণঠাসা স্কটল্যান্ড
‘চাকরিজীবী নারী চাকরিজীবী পুরুষকে বিয়ে নয়’ যে কারণে এমন আইনের প্রস্তাব এমপির

‘চাকরিজীবী নারী চাকরিজীবী পুরুষকে বিয়ে নয়’ যে কারণে এমন আইনের প্রস্তাব এমপির

অনলাইন ডেস্কঃ চাকরিজীবী নারী ও পুরুষের মধ্যে বিবাহ বন্ধ করার জন্য একটি আইন প্রনয়ণের দাবি জানিয়ে শনিবার সংসদে হাস্যরসের সৃষ্টি করেছেন একজন এমপি।

বগুড়া-৭ আসনের স্বতন্ত্র এমপি রেজাউল করিম বাবলু সংসদ অধিবেশনে বলেন, ‘দেশে প্রচলিত একটা রেওয়াজ আছে যে, চাকরিজীবী পুরুষ, চাকরিজীবী নারীকে বিয়ে করতে চায়। আবার চাকরিজীবী নারীও চাকরিজীবী পুরুষকে বিয়ে করতে চায়। কিন্তু এভাবে বেকার সমস্যার সমাধান হয় না।’

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক অবশ্য তার এই প্রস্তাবকে তৎক্ষণাৎ নাকচ করে দেন এবং এটাকে ‘অসাংবিধানিক’ বলে মন্তব্য করেন।

রেজাউল করিম বাবলু যা বলেন :

শনিবার সংসদের অধিবেশনে রেজাউল করিম বাবলু বলেন, ‘মাননীয় মন্ত্রীকে আমি নিবেদন করব, এই আইনটি সুবিধাজনকভাবে প্রণয়ন করতে, যে কোনে চাকরিজীবী পুরুষ কোনো চাকরিজীবী নারীকে এবং কোনো চাকরিজীবী নারী কোনো চাকরিজীবী পুরুষকে বিয়ে করতে পারবে না।’

‘এই আইন প্রণয়ন করলে, বেকার সমস্যা কিছুটা হলেও লাঘব হবে’, বলেন তিনি। এই আইনের প্রস্তাব দেওয়ার পেছনে আরেকটি কারণ হিসেবে বাবলু বলেন, ‘যেই দম্পতির দুজনই চাকরি করে, সেই পরিবারের শিশু গৃহকর্মীদের দ্বারা নির্যাতিত হয়।’

সংসদে প্রতিক্রিয়া :

তার এই বক্তব্য পেশের সঙ্গে সঙ্গেই সংসদে উপস্থিত এমপিদের মধ্যে ব্যাপক হাস্যরসের সৃষ্টি হয়। সংসদ টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত সংসদের অধিবেশনে অনেক এমপিকেই দেখা যায় সশব্দে হেসে উঠতে।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এই প্রস্তাবের বিপরীতে বলেন, ‘এরকম প্রস্তাব নিয়ে আমি এখান থেকে দুই কদমও হাঁটতে পারব না। এটা অসাংবিধানিক প্রস্তাব। উনি এটা এখানে কীভাবে বললেন, আমি বুঝতে পারলাম না।’

এরপর আইনমন্ত্রী মন্তব্য করেন, ‘আমাদের যেহেতু বাকস্বাধীনতা আছে, সেহেতু তিনি যা খুশি তাই বলতে পারেন। নিশ্চয়ই উনি যা খুশি তাইয়ের মধ্যে আছেন। কিন্তু আমি যা খুশি তাই গ্রহণ করতে পারব না। কারণ, আমি জনপ্রতিনিধি।’

সংসদ টিভিতে প্রচারিত রেজাউল করিম বাবলুর প্রস্তাব এবং তার জবাবে আইনমন্ত্রীর বক্তব্য সম্বলিত ভিডিওটি এরইমধ্যে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাবলুর বক্তব্যের সমালোচনা করছেন।

রেজাউল করিম বাবলু ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো অংশ নিয়ে এমপি নির্বাচিত হন। তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেন। এর আগেও সংসদে তার দেওয়া বক্তব্য নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়। ২০২০ সালের নভেম্বর মাসে তিনি সংসদে একটি বিলের ওপর আলোচনার সময়, ক্রমবর্ধমান ধর্ষণের ঘটনার জন্য নারীবাদীদের দায়ী করে বক্তব্য দেন। এ ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। ওই বছরই অক্টোবর মাসে সদ্য কেনা একটি লাইসেন্সকৃত পিস্তল হাতে নিয়ে ছবি তুলে ফেসবুকে পোস্ট করার কারণেও তাকে নিয়ে বিস্তর সমালোচনা হয়।

সূত্র : বিবিসি বাংলা

এজেড এন বিডি ২৪/ রামিম

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x