সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫৩ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্বের বাধ্যবাধকতা তুলে নিল সৌদি নুসরাতের মামলা: অসংলগ্ন অনুমান আর কল্পনা মানুষের জীবনের থেকেও কি ধর্ম বড়, প্রশ্ন শ্রীলেখার স্ত্রীকে রেখে দশম শ্রেণির ছাত্রীকে বিয়ে করলেন শিক্ষক হাতির পিঠে চড়ে মনোনয়ন জমা সনাতন ধর্মাবলম্বীর সৎকারে এগিয়ে এলো মুসলিমরা আবারও বাড়ছে ভোজ্যতেলের দাম বগুড়ার অপু বিশ্বাস যেভাবে সিনেমার নায়িকা হলেন শহীদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন আজ স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু বাংলাদেশের বাংলাদেশের সামনে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিল স্কটল্যান্ড মালিঙ্গাকে পেছনে ফেলে বিশ্ব রেকর্ড সাকিবের কাপাসিয়ায় ১১ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ৫০ জন লক্ষ্মীপুরে ৪ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ২৮ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল বাংলাদেশের দাপুটে বোলিংয়ে কোণঠাসা স্কটল্যান্ড
গঙ্গাচড়ায় তিস্তা ও ঘাঘট গ্রাস করছে গঙ্গাচড়ার জনপদ

গঙ্গাচড়ায় তিস্তা ও ঘাঘট গ্রাস করছে গঙ্গাচড়ার জনপদ

অনলাইন ডেস্কঃ রংপুরের গঙ্গাচড়ায় তিস্তা নদীর পাশাপাশি এবার শুরু হয়েছে ঘাঘট নদের ভাঙন। ছয় পরিবারের ঘরবাড়ি বিলীন হওয়ার পর ভাঙছে স্থানীয় কবরস্থান। ভাঙনের হুমকিতে রয়েছে রাস্তাসহ আরও বেশ কয়েকটি পরিবারের ঘরবাড়ি ও উঠতি আমনের ক্ষেত। অপরদিকে গত দুই সপ্তাহে গঙ্গাচড়ার কোলকোন্দ, লক্ষীটারী ইউনিয়নসহ বেশ কিছু এলাকায় দুই শতাধিক বসতভিটা তিস্তা গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

স্থানীয়রা জানান, কয়েক দিনের টানা বর্ষণে ঘাঘট নদের পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিভিন্ন স্থানে ভাঙন দেখা দিয়েছে। উপজেলার আলমবিদিতর ইউনিয়নের চওড়া পাড়ায় গত দু’দিনের ভাঙনে ছয় পরিবারের ঘরবাড়ি ঘাঘটে বিলীন হয়েছে। এছাড়া ওই ইউনিয়নের নগরবন এলাকায় ঘাঘটে কবরস্থান ভেঙে যাচ্ছে।

ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত মতিয়ার রহমান, রাজা মিয়া, রাজু মিয়া, লিজু মিয়া, লেবু মিয়া ও মিজানুর রহমান জানান, করোনার পাশাপাশি ঘাঘটের ভাঙনে তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। অর্থের অভাবে নতুন করে বাড়ি নির্মাণ করতে না পেরে ঘর ও আসবাবপত্র মাটিতেই ফেলে রেখেছেন। কোনোরকমে থাকছেন আত্মীয়ের বাড়িতে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসলীমা বেগম জানান, ঘাঘটের ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবগত করা হয়েছে। তারা দ্রুত ভাঙন রোধে ব্যবস্থা নেবে। ভাঙন কবলিত পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া তাদের আবেদন সাপেক্ষে আর্থিক সহায়তা ও ঘর তৈরির জন্য টিনের ব্যবস্থা করা হবে।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x