বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৫:০৫ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
যে নামে হতে পারে কুমিল্লা ও ফরিদপুর বিভাগ চুল পড়া বন্ধের দুর্দান্ত উপায় সাকিব-লিটনের ব্যাটে এগোচ্ছে বাংলাদেশ ৪ জাতি টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের কোচ আবাহনীর লেমোস দলের প্রয়োজনে সড়ে দাঁড়াবেন মরগান করোনায় আরও ১০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৪৩ অষ্টগ্রামের পনিরের কদর এখন সর্বত্র খুলনায় মাদক মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন নিজ দলেই বিতর্কিত তারেক, শঙ্কা ভবিষ্যৎ নিয়ে দেশে ডিজিটাল ডিভাইস উৎপাদনের যাত্রা শুরু হয়েছে: টেলিযোগাযোগমন্ত্রী সুন্দরবন সুরক্ষায় স্ট্র্যাটেজিক এনভায়রনমেন্টাল ম্যানেজমেন্ট প্ল্যান করা হয়েছে: পরিবেশমন্ত্রী ‘রপ্তানি বাণিজ্য গতিশীল করতে বিভিন্ন ধরনের মেলার বিকল্প নেই’ ডিএমপির ৭ ইন্সপেক্টরকে বদলি জন্মদিনে ধরা দেবেন ‘লাল-সাদা’ পরী, আমন্ত্রণ তালিকায় কারা? ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলায় বাংলাদেশের অংশগ্রহণ তাৎপর্যপূর্ণ: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী
কোথাকার কোন পরীমনি : মির্জা ফখরুল

কোথাকার কোন পরীমনি : মির্জা ফখরুল

অনলাইন ডেস্কঃ বাংলাদেশের আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি বুধবার সকালে কাশিমপুর কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। আটক হওয়ার পর থেকে তাকে নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রচারিত হয়। আর এনিয়ে কথা বলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। জাতীয় প্রেস ক্লাবে শনিবার এক আলোচনা সভায় তিনি পরীমনিকে ‘টাক্ষক’ করে কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা এখন যে অবস্থাটায় বাস করছি, এটা একটা ছদ্মবেশী বাকশাল। আমাদের সাংবাদিকদের ভাইরা কেউ নিজেরাই লেখেন না, সেলফ সেন্সরশিপ করছেন। কেন? যদি একটা শব্দ, একটা বাক্য যদি এদিক-ওদিক হয়, তাহলে আবার তাদেরকে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে জেল এবং নন-বেইল, এই একটা অবস্থা। মানুষের দৃষ্টি ফেরাতে নানা ঘটনার অবতারণা হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন ফখরুল।

তিনি বলেন, ‘আপনারা দেখছেন আমাদের পত্র-পত্রিকাগুলোও ওই লাইনে চলে গেছে। যেইটা ইস্যু না- কোথাকার কোন পরীমনি, ওমুক মনি- এসব নিয়ে তারা ঝাঁপিয়ে পড়তেছে এবং ওটাকে বড় করে হেডলাইন করে..।’ পরীমনিকে বারবার রিমান্ডে নেওয়া নিয়ে হাই কোর্টের অসন্তোষ প্রকাশের সূত্র ধরে তিনি বলেন, ‘কিন্তু যখন আমাদেরকে রিমান্ডে নেওয়া হয় নিয়ম ব্যতিক্রম করে, যখন রাজনৈতিক নেতাদেরকে অত্যাচার করা হয় রিমান্ডের মধ্য দিয়ে, সেই সম্পর্কে কিন্তু তারা কথা বলে না।’

তিনি বলেন, যে দেশের জন্য আমরা রক্ত দিয়ে যুদ্ধ করেছি, সেই বাংলাদেশকে তারা একটি একনায়কতান্ত্রিক, কর্তৃত্ববাদী ও ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। আমাদের অধিকারগুলোকে কেড়ে নেওয়া হয়েছে। আজকে কৃষক ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না। আবার ৫০ টাকা কেজির নিচে মোটা চালও পাওয়া যাচ্ছে না। এই অত্যাচার কী চলতেই থাকবে? না। এ রকম চলতে পারে না।

তিনি আরো বলেন, দুর্নীতি থেকে মানুষের দৃষ্টি সরাতে এসব ইস্যু তৈরি করে। গণতন্ত্র হওয়ার পর থেকে আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র বিশ্বাস করে না। আমার মনে হয় আওয়ামী লীগ কোনোদিন গণতন্ত্র বিশ্বাস করেনি বলে আজকে দেশের এ অবস্থা। তারা জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষা ধ্বংস করেছে।

তিনি বলেন, ৭০ সালে তারা বলেছিল গণতন্ত্র দেবে, আট আনা কেজি চাল খাওয়াবে। তখন তারা বলেছিল, সোনার বাংলা শ্মশান কেন। এই পোস্টারও তখন ছাপিয়েছিল। এসব বলে ৭০ সালে পাস করেছিল। পরে ৭১ সালে যখন যুদ্ধ শুরু হলো- তখন তারা সব পালিয়েছে এবং আত্মসমর্পণ করল। এটা ইতিহাস। এ সময় তিনি আরো বলেন, এখানে আমি ও জাফরুল্লাহ ভাইসহ যারা বসে আছি- সবাই মুক্তিযোদ্ধা। আমরা ভারতে গিয়ে আশ্রয় গ্রহণ করিনি।

ফখরুল বলেন, আজ মানুষকে বাঁচাতে হলে টিকা দরকার। আপনারা কতটুকু টিকা জোগাড় করেছেন। চার শতাংশও যোগাড় করতে পারেননি। কিন্তু প্রতিদিন স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলছেন, এই আসছে পাঁচ লাখ, এই আসছে ১০ লাখ। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে চার ভাগের বেশি মানুষকে টিকা দেওয়া হয়নি। কারণ তারা দুর্নীতির কারণে ব্যর্থ হয়েছেন। তাদের মাথার মধ্যে সব সময় থাকে কোনটিতে কমিশন বেশি পাব।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x