বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:০০ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ: ভারতকে টপকে গেল পাকিস্তান খাগড়াছড়িতে জাতীয় পতাকা প্রদক্ষিণ শোভাযাত্রা যশোরে আনসার-ভিডিপি’র পতাকা র‌্যালি মাদারীপুরে আনসার ও ভিডিপির পতাকা র‍্যালি মানিকগঞ্জে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর পতাকা র‌্যালি কক্সবাজারে যাত্রা শুরু হলো দেশের প্রথম উড়ন্ত রেস্টুরেন্টের টপ চারের একি হাল! লাইসেন্সের মেয়াদ না থাকায় পুলিশ সদস্যকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা সমুদ্রে ডাকাতি, উপকূলে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে মুক্তিপণ আদায় তারামন বিবির মৃত্যুবার্ষিকীতে নেই কোনো সরকারি কর্মসূচি জাহাঙ্গীর আলম কি আওয়ামী লীগে একজনই? বাংলাদেশের পঞ্চাশে বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লবের প্রাসঙ্গিকতা পথশিশুদের নিয়ে এম এ রশিদের গান ডিসেম্বর বাঙালির আনন্দ-গৌরবের মাস ‘উচ্ছৃঙ্খল ছাত্র ও জনতা’র নামে পুলিশের মামলা, আসামি ৮০০
করোনার উৎস খুঁজে পাওয়া যাবে না কোনোদিন

করোনার উৎস খুঁজে পাওয়া যাবে না কোনোদিন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ চীনের উহান শহরে প্রথম মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হদিশ পাওয়া যায়। এরপর নানা রকম বিধিনিষেধ আরোপ, সঙ্গে টিকাদানের গতি বাড়িয়েও সংক্রমণের হাত থেকে মুক্তি মিলছে না বিশ্বের অনেকে দেশে। এ ভাইরাসে আবির্ভাব কীভাবে হয়েছে, কোথা থেকেই ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের আনাচে কানাচে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ নিয়ে তদন্ত চললেও সবার সন্দেহের আঙুল যেন চীনের দিকেই।
তবে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা বলছে, নানা বিতর্ক চললেও করেনাভাইরাসের মূল উৎস নির্ধারণে তারা সফল নাও হতে পারেন। আর এতে করে হয়তো ভাইরাসের উৎস সম্পর্কে কখনোই জানা যাবে না। স্থানীয় সময় শুক্রবার এ তথ্য জাননিয়েছে তারা।

শনিবার সংবাদমাধ্যম রয়টার্স জানিয়েছে, করোনাভাইরাস কী পশুর শরীর থেকে মানবদেহে ছড়িয়েছিল নাকি গবেষণাগার থেকে দুর্ঘটনাক্রমে বাইরে সেটি ছড়িয়ে পড়ে যে বিষয়ে একটি বিস্তারিত পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে মার্কিন একটি গয়েন্দা সংস্থা অফিস অব দ্য ইউএস ডিরেক্টর অব ন্যাশনাল ইনটেলিজেন্স (ওডিএনআই)।

ওই রিপোর্টে জানিয়েছে, প্রাকৃতিক ভাবে করোনাভাইরাস উৎপত্তি এবং গবেষণাগার থেকে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার ব্যাপারে উভয় বিষয়েই বিশ্বাসযোগ্য অনুমান রয়েছে। তবে এই দু’টির মধ্যে কোনটির সম্ভাবনা বেশি সে বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের মধ্যে মতানৈক্য রয়েছে। এছাড়া ভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে কোনো নির্দিষ্ট মূল্যায়ন করা যায় কিনা, সে বিষয়েও একমত নন বিশেষজ্ঞরা।

সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, কোনো জৈব অস্ত্র হিসেবে করোনাভাইরাস সৃষ্টির বিষয়টিকেও বাতিল করে দেওয়া হয়েছে মার্কিন গোয়েন্দাদের ওই রিপোর্টে। কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, জৈব অস্ত্র হিসেবে ভাইরাস সৃষ্টির অভিযোগের প্রবক্তাদের উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজির গবেষণাগারে সরাসরি প্রবেশাধিকার নেই। আর তাই এই ধরনের তত্ত্ব ছড়ানোর কারণে তাদেরকে ভুল তথ্য ছড়ানোর অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

তবে এই রিপোর্টটি সামনে আসার পরপরই শুক্রবার এর সমালোচনা করে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে চীন। ওয়াশিংটনে অবস্থিত চীনা দূতাবাসের মুখপাত্র লিউ পেংইউ এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের উৎস খোঁজার জন্য বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞদের ওপর নির্ভর না করে যুক্তরাষ্ট্র বরং গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ওপর আস্থা রাখছে। ওয়াশিংটনের এই কর্মকাণ্ড পুরোপুরি রাজনৈতিক প্রহসন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের এই কর্মকাণ্ড ভাইরাসের উৎস নির্ধারণে বিজ্ঞানভিত্তিক গবেষণাকে ছোট করবে এবং একই লক্ষ্যে পরিচালিত বৈশ্বিক প্রচেষ্টাকেও বাধাগ্রস্ত করবে।

করোনাভাইরাস কীভাবে এলো তা নিয়ে এতদিন ধরে কম আলোচনা হয়নি। নানা ধরনের তত্ত্ব বিভিন্ন সময়ে প্রকাশ্যে এসেছে। কেউ বলেছেন চীনের উহানে কাঁচা মাংসের বাজার থেকে, কেউ বলেছেন বাদুড় থেকে, আবার সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতো অনেকে অভিযোগ করেছেন, চীনের গবেষণাগার থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি হয়েছে। চীন অবশ্য এই দাবি বারবার অস্বীকার করেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এর আগে বিজ্ঞানীদের একটি দল গঠন করেছিল। তারা চীনে সফর করলেও নিশ্চিতভাবে বলতে পারেনি ভাইরাসের উৎপত্তি কীভাবে হলো। তারা চীনের বিজ্ঞানীদের সঙ্গে কাজ করে এই সিদ্ধান্তে এসেছিলেন যে, সম্ভবত বাদুড় থেকেই এই ভাইরাস এসেছে। তবে এনিয়ে আরও গবেষণা দরকার। যুক্তরাষ্ট্রও বিশেষজ্ঞদের দল গঠন করেছিল একই লক্ষ্য নিয়ে।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে প্রথম নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। প্রথমে বলা হয়েছিল, উহান শহরের কেন্দ্রে অবস্থিত হুনান সি-ফুড মার্কেট থেকেই প্রথম করোনা সংক্রমণের ঘটনা ঘটে।

দেশটির সরকারি তথ্য অনুযায়ী, করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম যে ব্যক্তি মারা যান, তার ওই মার্কেটে নিয়মিত যাতায়াত ছিল। ৬১ বছর বয়স্ক ওই ব্যক্তি যখন মারা যান, তখনও এই রোগের নাম নির্দিষ্ট করা হয়নি। চীনের সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, ‘অপরিচিত ধরনের নিউমোনিয়ায়’ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন তিনি।

তবে যুক্তরাষ্ট্র প্রথম থেকেই দাবি করে আসছে, চীন থেকে গোটা বিশ্বে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তো একধাপ এগিয়ে গিয়ে কোভিড-১৯ কে ‘‘চীনা ভাইরাস’’ হিসেবে অভিহিত করেছিলেন।

যদিও, চীন এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। দেশটির দাবি, করোনাভাইরাসের উত্‍‌স নির্দিষ্ট কোনো একটা জায়গা নয়। একাধিক উত্‍‌স থেকে কোভিড-১৯ ভাইরাস সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। অবশ্য চীনের এই দাবির সঙ্গে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশই একমত নয়।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x