বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৪৯ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ: ভারতকে টপকে গেল পাকিস্তান খাগড়াছড়িতে জাতীয় পতাকা প্রদক্ষিণ শোভাযাত্রা যশোরে আনসার-ভিডিপি’র পতাকা র‌্যালি মাদারীপুরে আনসার ও ভিডিপির পতাকা র‍্যালি মানিকগঞ্জে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর পতাকা র‌্যালি কক্সবাজারে যাত্রা শুরু হলো দেশের প্রথম উড়ন্ত রেস্টুরেন্টের টপ চারের একি হাল! লাইসেন্সের মেয়াদ না থাকায় পুলিশ সদস্যকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা সমুদ্রে ডাকাতি, উপকূলে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে মুক্তিপণ আদায় তারামন বিবির মৃত্যুবার্ষিকীতে নেই কোনো সরকারি কর্মসূচি জাহাঙ্গীর আলম কি আওয়ামী লীগে একজনই? বাংলাদেশের পঞ্চাশে বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লবের প্রাসঙ্গিকতা পথশিশুদের নিয়ে এম এ রশিদের গান ডিসেম্বর বাঙালির আনন্দ-গৌরবের মাস ‘উচ্ছৃঙ্খল ছাত্র ও জনতা’র নামে পুলিশের মামলা, আসামি ৮০০
কদর বাড়ছে বরেন্দ্র অঞ্চলে আম্রপালির

কদর বাড়ছে বরেন্দ্র অঞ্চলে আম্রপালির

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আম চাষে অনেকেই সফলতার মুখ দেখছেন। দেশীয় জাতের আম গোপালভোগ, ফজলি কিংবা ল্যাংড়ার চেয়ে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট উদ্ভাবিত আঁশবিহীন সুস্বাদু, আম্রপালির বারি-৩ চাষে কৃষক ও চাষিরা ঝুঁকে পড়ছেন। আগে শৌখিন আমচাষিরা অল্প পরিসরে চাষাবাদ করলেও বর্তমানে তা বাণিজ্যিকভাবেও গড়ে উঠেছে সুস্বাদু আম্রপালি বারি-৩ আমের বাগান। সবচেয়ে বেশি আম্রপালি চাষাবাদ হচ্ছে বরেন্দ্র অঞ্চল হিসেবে পরিচিত চাঁপাইনবাবঞ্জের সদর উপজেলার আমনুরা এলাকা, নাচোল, রহনপুর, নওগাঁর পোরশা, নিয়ামতপুরে। এ ছাড়া রাজশাহীর তানোর ও গোদাগাড়ী অঞ্চলগুলোতে আম্রপালি চাষাবাদ শুরু হয়েছে।

এসব এলাকায় এখন বাগানে বাগানে শোভা পাচ্ছে আম্রপালি। ছোট গাছে আম ধরে মাটিতে হেলে পড়ছে থোকা। এসব দেখে সড়কে চলাচল করা অনেক পথচারীর নজর কাড়ছে সহজেই। চাঁপাইনবাবগঞ্জ হর্টিকালচার সেন্টার ও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৩ সালে জেলায় মাত্র ৫২ বিঘা জমিতে আম্রপালি চাষ শুরু করা হয়। ২০১৪ সালে হয় ৭৫ বিঘা। ২০১৫ সালে বেড়ে আম্রপালি চাষ হয় ১১২ বিঘা জমিতে। ২০১৬ সালে তা ব্যাপক বিস্তার হয়ে জেলায় আম্রপালি চাষ হচ্ছে ৩২১ বিঘা জমিতে। সর্বশেষ ২০১৮-২০১৯ সালে চাষাবাদ বেড়ে দাঁড়ায় ৮৫০ হেক্টর জমিতে।

এ ছাড়াও নওগাঁ জেলাতেও আম্রপালি চাষ হয়েছে ব্যাপক হারে। বাড়ছে রাজশাহী জেলাতেও।এক অনুসন্ধানে দেখা গেছে, বরেন্দ্র অঞ্চলের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের জামতলা এলাকায় আসলাম নামের এক ব্যক্তি সড়কের পাশে তিন বিঘা জমিতে আম্রপালি চাষাবাদ করেছেন। তার বাগানে শোভা পাচ্ছে থোকায় থোকায় আম। আসলাম জানান, মাত্র চার বছর আগে তিন বিঘা জমিতে ৩০০ আম্রপালি গাছ লাগিয়েছিলেন তিনি। দ্বিতীয় বছর থেকেই আম ধরা শুরু। গত বছর এ তিন বিঘা আমবাগান থেকে আম বিক্রি করে দেড় লাখ আয় করেছেন। চলতি বছর আরও বেশি হবে বলে আশা তার।

নাচোল উপজেলার নিজামপুর গ্রামের আম্রপালি বাণিজ্যিকভাবে চাষাবাদ করছেন রবিউল ইসলাম। তিনি জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ হর্টিকালচারের পরামর্শে তিনি দুই বছর আগে তার ৫ বিঘা জমিতে আম্রপালি গাছ রোপণ করেছেন। এ বছর প্রথম আম ধরেছে। রোপণের অল্প সময়ে আম ধরায় খুশি তিনি। তিনি আরও জানান, ধানসহ অন্য ফসল করে লোকসান হচ্ছে। তাছাড়া অন্য আমের জাত লাগালে জায়গা ও সময় দুটোই বেশি লাগে, আর আম্রপালিতে দুটোই কম লাগায় অল্প সময়ে বেশি লাভ হচ্ছে। তাই তিনি আম্রপালি চাষাবাদ করেছেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ হর্টিকালচার সেন্টারের কর্মকর্তা জহুরুল ইসলাম জানান, আম্রপালি গাছ বামন আকৃতির ও ঝোপালো। ছোট হওয়া সত্ত্বেও অন্যান্য জাতের আমগাছের সমান বয়স ধরে বাঁচে। দেশের সব এলাকায় এবং মাটিতে উপযোগী। অল্প জমিতে বেশি গাছ লাগানো যায়। এমনকি বাড়ির ছাদে টবেও হয়। এ জাতটি জমিতে মিশ্রভাবে আবাদ করা যায়। প্রথম বছরেই ফল দেয়। আঁশবিহীন সুস্বাদু আম্রপালির বারি-৩ চাষের বরেন্দ্র অঞ্চলে জনপ্রিয়তা ক্রমেই বাড়ছে। এ কর্মকর্তা আরও জানান, প্রায় ২৫ বছর আগে এ জাতটি পাশের দেশ ভারত থেকে বাংলাদেশে আসে। পরবর্তীতে বাণিজ্যিকভাবে আম্রপালি বারি-৩ আম চাষ বরেন্দ্র অঞ্চলসহ পুরো দেশে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। এর আগে ১৯৯৩ সালে জাতীয় আম প্রদর্শনীতে সর্বপ্রথম আমের গুণগত মান দেখে আম্রপালি আম চাষের প্রতি আমাদের দেশে সবার দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়।

এজেড এন বিডি ২৪/ ডন

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x