বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৫০ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
এসি বিস্ফোরণের কারণ ও রক্ষা পেতে করণীয় উপহার নিয়ে অভিযুক্ত স্যামুলেস নিউজিল্যান্ডকে হুমকি দিয়েছে ভারত, দাবি পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রীর কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল একটুতেই অসুস্থ হচ্ছেন? এর জন্য দায়ী যে পাঁচটি বদভ্যাস দেশের লাখ লাখ তরুণদের স্বপ্ন জাগিয়েছেন শেখ হাসিনা: ওবায়দুল কাদের কীটনাশক দিয়ে ৭২টি ঘুঘু-কবুতর হত্যার ঘটনায় থানায় অভিযোগ সিরাজগঞ্জে ২০ লাখ টাকার হেরোইনসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক ই-অরেঞ্জ গ্রাহকদের মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ ব্যাঙের ছবিতে লুকিয়ে আছে ঘোড়া, খুঁজে বের করতে পারবেন? এক ডালেই সাড়ে ৮০০ টমেটো, গিনেস বুকে নাম স্মার্ট পোশাক না পরলে ঢোকা যাবে না রেস্তোরাঁয় রোজীর বাহারি অফার: একা গেলে ১৮ লাখ, সপরিবারে ২৩ লাখ কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জনের বিরুদ্ধে মামলার এজাহারে যা বললেন ভুক্তভোগী নারী ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল
ইউপি নির্বাচনে কঠোর আওয়ামী লীগ

ইউপি নির্বাচনে কঠোর আওয়ামী লীগ

অনলাইন ডেস্কঃ খুলনায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ। নৌকার বিরুদ্ধে প্রার্থী হওয়ায় দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে দুই ডজনের বেশি নেতা-কর্মীকে। একই সঙ্গে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় থাকা নেতা-কর্মীদেরও বহিষ্কারের হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে নির্বাচনের প্রচারণাকে ঘিরে হামলা সংঘর্ষের ঘটনায় উদ্বেগ ছড়াচ্ছে। গতকাল কয়রায় দক্ষিণ বেতকাশি ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকরা নৌকা প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণার মাইক ভাঙচুর করে। এ সময় হামলায় নৌকা প্রার্থী শামসুর রহমানের আটজন সমর্থক আহত হয়। একইভাবে দীঘলিয়ার সেনহাটি ইউনিয়নে নির্বাচনী সহিংসতায় ৪ জন আহত হয়। তাদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ছাড়া বটিয়াঘাটার আমিরপুর ইউনিয়নে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে মারপিটের ঘটনা ঘটেছে। ১৫-২০ জন আহত হয়ে হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা নিয়েছে। আমিরপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী খায়রুল ইসলাম খান গতকাল খুলনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচনে প্রচারণা নিয়ে উদ্বেগের কথা জানান। তিনি অভিযোগ করেন, প্রচারণায় নামলে তাদের কর্মীদের মারধর করা হচ্ছে। মোটরসাইকেল মহড়া দিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করা হচ্ছে। ফলে নির্বাচনী প্রচারণায় নামতে সাহস পাচ্ছেন না অনেকে।

জানা যায়, আগামী ২০ সেপ্টেম্বর প্রথম ধাপে খুলনার ৩৪টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ১১ এপ্রিল ৩৫টি ইউনিয়নে নির্বাচনের কথা ছিল। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় নির্বাচন স্থগিত করা হয়। পরে ২১ জুন নির্বাচনের ঘোষণা দিলেও তা বন্ধ হয়ে যায়। পাইকগাছার হরিঢালী ইউনিয়নের এক চেয়ারম্যান প্রার্থী করোনায় মারা যাওয়ায় সেখানে নির্বাচন স্থগিতাদেশ রয়েছে। নির্বাচন কমিশন জানায়, প্রথম ধাপে দিঘলিয়ার ৬টি, কয়রার ৭টি, দাকোপে ৯টি, পাইকগাছায় ৯টি ও বটিয়াঘাটায় ৩টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

দলের বিদ্রোহীদের বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুজিত অধিকারী জানান, কোনো অবস্থায় নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী থাকবে না। যারা নৌকা চেয়ে পাননি কিন্তু বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন, তাদের স্ব স্ব দলীয় পদ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। আগামী ৩ দিনের মধ্যে কেন তাদের স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে না মর্মে কারণ দর্শানোর জবাব দিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কোনো নেতা-কর্মী বিদ্রোহী প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করলে তাদের আগামী ৩ দিনের মধ্যে নৌকার পক্ষে কাজ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় তারাও সাময়িক বহিষ্কার হবেন।

এজেড এন বিডি ২৪/ তমা

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24
x