শনিবার, ২৪ Jul ২০২১, ০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
‘ভালোবাসা পাঠালাম তোমায়’ লিখে যাকে বার্তা দিলেন নুসরাত! কোরবানি নিয়ে ফেসবুকে বিরূপ মন্তব্য, লালমনিরহাটে প্রধান শিক্ষক আটক ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক শব্দসৈনিক ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক বিয়ে করলেন সানাম সুমি সখিনার প্রেমে অমর হয়ে থাকবেন ফকির আলমগীর খিলগাঁও কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন ফকির আলমগীর মদের দোকানে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের ভিড়, রুখবে কে? অন্য রোগীর প্রেসক্রিপশনে ওষুধ খেলেন জয়নাল কঙ্গোতে নারী ও শিশুসহ নিহত ১৬ বেসামরিক নাগরিক ‘সবচেয়ে কঠোর’ লকডাউনে টাঙ্গাইলের চার বিনোদনকেন্দ্রে হাজারো মানুষ সীমিত পরিসরে ৫ আগস্ট পর্যন্ত চলবে উচ্চ আদালত যৌতুক হিসেবে কচ্ছপ আর কুকুর দাবি যুবকের, অতঃপর… দুই ঘণ্টার ব্যবধানে মা-ছেলের মৃত্যু মসজিদে নামাজের বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নতুন নির্দেশনা
গ্রামবাসীর খরচে নির্মিত সড়ক দেখিয়ে সরকারি প্রকল্পের টাকা উত্তোলন

গ্রামবাসীর খরচে নির্মিত সড়ক দেখিয়ে সরকারি প্রকল্পের টাকা উত্তোলন

জেলা প্রতিনিধি: নড়াইলের কালিয়ায় গ্রামবাসীর নিজ খরচে নির্মিত রাস্তার কাজ দেখিয়ে অতিদরিদ্রদের কর্মসংস্থানের জন্য পরিচালিত সরকারি প্রকল্পের টাকা উত্তোলনের অভিযোগে উঠেছে ইউপি চেয়ারম্যানসহ চারজনের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় ১৬ জুন উপজেলার নোয়াগ্রামের আব্দুল্লাহ শেখসহ ছয় জন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজমুল হুদার কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। পরে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বাদী হয়ে প্রকল্প সভাপতির বিরুদ্ধে সার্টিফিকেট মামলা করেন।

অভিযুক্তরা হলেন- পুরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিরলু ইসলাম মনি, পিআইসি মো. সেলিম রেজা, প্রকল্প সুপারভাইজার দেবাশিষ বিশ্বাস ও পিআইও শরীফ মো. রুবেল।

অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, উপজেলার পুরুলিয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের নোয়াগ্রামের খাজা মোল্যার বাড়ি থেকে বিল অভিমুখী একটি গ্রাম্য রাস্তা প্রায় ৩-৪ মাস আগে এলাকাবাসী নিজেদের অর্থে সংস্কার করেন। কিন্তু সরকার পরিচালিত অতিদরিদ্রদের কর্মসংস্থানের জন্য কর্মসূচির আওতায় প্রকল্প বাস্তবায়নের নামে গ্রামবাসীর টাকায় নির্মিত ওই রাস্তা দেখিয়ে কাজ না করেই প্রকল্পের টাকা তুলে ভাগবাটোয়ারা করেন পুরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিরলু ইসলাম মনি, পিআইসি মো. সেলিম রেজা, প্রকল্প সুপারভাইজার দেবাশিষ বিশ্বাস ও পিআইও শরীফ মো. রুবেল।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের উপসহকারী প্রকৌশলী দেবদাশ বিশ্বাসের তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতে প্রকল্পের কাজের প্রথম পর্যায়ে ৬৯ হাজার টাকা তাদের দেয়া হয়। ভুয়া প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান এলাকাবাসী।

অভিযোগ রয়েছে, উপজেলা ব্যাপী সব ইউনিয়নে অতিদরিদ্রদের জন্য চলতি অর্থ বছরে সরকারের বাস্তবায়নাধীন কর্মসৃজন প্রকল্পের ১০-১৫ শতাংশ কাজও যথাযথ কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় প্রকল্প কমিটির সভাপতিরা করেননি। দেবদাশ ও নির্বাচিত প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্টরা কাজ না করেই এ সমস্ত টাকা ভাগাভাগি করে নেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা যায়, অতিদরিদ্রদের জন্য চলতি অর্থ বছরে সরকারের বাস্তবায়নাধীন কর্মসৃজন প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ে উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে ৪৮টি প্রকল্পের কাজ হাতে নেয়া হয়। ওইসব প্রকল্পের অনুকুলে ১ হাজার ২৩৯ জন শ্রমিক নিয়োগ করা হয়। আর প্রকল্প সমূহের অনুকুলে ৯৯ লাখ ১২ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। ১৭ এপ্রিল থেকে শুরু হয়ে ৯ জুন পর্যন্ত চলে প্রকল্পের কাজ।

কিন্তু উপজেলার নোয়াগ্রামের গ্রামবাসীর অভিযোগ দায়েরের পর সংশ্লিষ্টদের টনক নড়ে। তখন তড়িঘড়ি করে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শরীফ মো. রুবেল প্রকল্প সভাপতি মো. সেলিম মোল্যার প্রথম পর্যায়ে তুলে নেয়া ৬৯ হাজার টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য ১৬ জুন বিকালে ইউএনওর কাছে সার্টিফিকেট মামলা করেন।

ওইসব প্রকল্প বাস্তবায়নের দায়িত্বে নিয়োজিত উপসহকারী প্রকৌশলী দেবদাশ বিশ্বাস অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমার অজান্তেই এ ঘটনাটি ঘটেছে। সরকারি টাকা ফেরত আনার প্রক্রিয়া চলছে।’

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শরীফ মো. রুবেল বলেন, ‘আমি মাত্র কয়েকদিন নড়াইলের কালিয়া ও লোহাগড়া উপজেলার দায়িত্বে আছি। এখন পর্যন্ত কোনো ফাইলে স্বাক্ষর করি নাই। তবে আপনি বলার পরে বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব। সত্যিই যদি এ রকম হয়ে থাকে তাহলে পিআইসি মো. সেলিম রেজাকে টাকা ফেরত দিতে বাধ্য করব।’

ইউএনও মো. নাজমুল হুদা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘লিখিত অভিযোগ পেয়ে তদন্ত কমিটি করেছি, মামলা হয়েছে। টাকা ফেরত নেয়ার চেষ্টা অব্যাহত আছে।’

এজেড এন বিডি ২৪/ রাকিব 

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24