শনিবার, ২৪ Jul ২০২১, ০৯:২৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
সুপ্রিয় পাঠক, শুভেচ্ছা নিবেন। সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের ওয়েব সাইট নিয়মিত ভিজিট করুন এবং আমার ফেসবুক ফ্যান পেজে লাইক দিয়ে ফলো অপশনে সি-ফাষ্ট করে সঙ্গেই থাকুন। আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচারে স্বল্পমূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- aznewsroom24@gmail.com ধন্যবাদ।
সর্বশেষ সংবাদ :
‘ভালোবাসা পাঠালাম তোমায়’ লিখে যাকে বার্তা দিলেন নুসরাত! কোরবানি নিয়ে ফেসবুকে বিরূপ মন্তব্য, লালমনিরহাটে প্রধান শিক্ষক আটক ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক শব্দসৈনিক ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক বিয়ে করলেন সানাম সুমি সখিনার প্রেমে অমর হয়ে থাকবেন ফকির আলমগীর খিলগাঁও কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন ফকির আলমগীর মদের দোকানে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের ভিড়, রুখবে কে? অন্য রোগীর প্রেসক্রিপশনে ওষুধ খেলেন জয়নাল কঙ্গোতে নারী ও শিশুসহ নিহত ১৬ বেসামরিক নাগরিক ‘সবচেয়ে কঠোর’ লকডাউনে টাঙ্গাইলের চার বিনোদনকেন্দ্রে হাজারো মানুষ সীমিত পরিসরে ৫ আগস্ট পর্যন্ত চলবে উচ্চ আদালত যৌতুক হিসেবে কচ্ছপ আর কুকুর দাবি যুবকের, অতঃপর… দুই ঘণ্টার ব্যবধানে মা-ছেলের মৃত্যু মসজিদে নামাজের বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নতুন নির্দেশনা
কাজলের জন্য মন খারাপ হুমাইরার

কাজলের জন্য মন খারাপ হুমাইরার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রায় সাত মাস আগে তিনটি গরু কিনে আনেন ব্রাহ্মবাড়িয়ার আখাউড়া পৌর শহরের তারাগন এলাকা মো. হুমায়ুন। তিনটির মধ্যে কুচকুচে কালো গরুটিকে সবচেয়ে বেশি পছন্দ হয় হুমায়ুনের মেয়ে হুমাইরা। কালো হওয়ায় আদর করে গরুটির নাম রেখেছে সে কাজল। কিনে আনার পর থেকে সকাল-বিকেল কাজলকে নিয়েই ব্যস্ত থাকে সে।

এবার কোরবানি উপলক্ষে কাজলসহ তিনটি গরুই বিক্রি করার প্রস্তুতি নিয়েছেন হুমাইরার বাবা। এ খবর শোনার পর থেকেই মন খারাপ ছোট্ট হুমাইরার। অনলাইনে কাজলের ছবি আপলোড করার পর থেকেই সে বাবাকে গরুটি বিক্রি করতে নিষেধ করছে। এদিকে ছবি দেখে ক্রেতারা আসছেন হুমায়ুনের বাড়িতে, দরদাম করছেন। প্রতিবারই বাধা দেয় হুমাইরা, মন খারাপ করে কাজলের কাছে বসে থাকে।

হুমায়ুন বলেন, আমি তারাগন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নৈশপ্রহরীর কাজ করি। করোনা পরিস্থিতিতে স্কুল বন্ধ থাকায় অবসর সময় কাটাতে সাত মাস আগে কাজলসহ তিনটি গরু কিনে আনি। সেই থেকেই কাজলের দিকে বাড়তি নজর হুমাইরার। গরুটির গায়ের রং কুচকুচে কালো হওয়ায় কাজল নামটিও সে-ই রেখেছে। বাড়ির সবার চেয়ে কাজলের প্রতি তারই যত্ন বেশি ছিল। এখন কাজলকে বিক্রির খবর শুনতেই হুমাইরা মন খারাপ করে আছে। আমাকে বারবার বলছে আমি যেন কাজলকে বিক্রি না করি।

গরুটিও হুমাইরার সঙ্গে মায়ায় জড়িয়ে গেছে। কাজল নাম শুনলেই সে হুমাইরার ডাকে সাড়া দেয়। হুমাইরার হাতেই খাবার খায়। কাজলকে গোসল করানোর সময়ও হুমাইরা সঙ্গে থাকে। মেয়ের জন্য এখন কাজলকে বিক্রি করতেও মায়া লাগছে হুমায়ুনের। তবে গরুটিকে দেখে ক্রেতারা ভালোই দাম বলছেন। আশা করি দুই লাখ টাকার বেশি দাম উঠবে কাজলের।

আখাউড়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. কামাল বাশার বলেন, কোরবানির পশু বিক্রি করতে আখাউড়ায় ‘অনলাইন কোরবানির পশুর হাট’ নামের ফেসবুকে গ্রুপ খোলা হয়েছে। খামারি ও গৃহস্থরা নিজ আগ্রহে তাদের গরুর ছবি মোবাইল নাম্বার দিয়ে সেই গ্রুপে যুক্ত হচ্ছেন। আশা করি, এবার উপজেলার খামারিরা ভালো দাম পাবেন।

এজেড এন বিডি ২৪/হাসান

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

One response to “কাজলের জন্য মন খারাপ হুমাইরার”

  1. aznews room says:

    কাজলের জন্য মন খারাপ হুমাইরার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© 2021, All rights reserved aznewsbd24